|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   তথ্য -প্রযুক্তি -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
করোনায় মৃত ব্যক্তির শরীরে কতক্ষণ ভাইরাস থাকতে পারে?

করোনাভাইরাসকে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ‘সবচেয়ে বড় সংকট’ বলে অভিহিত করেছে জাতিসংঘ। বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া এই মহামারী মানবসমাজকে ধাক্কা দিয়েছে চরমভাবে, মানুষের জীবন-জীবিকাও কেড়ে নিচ্ছে।

ইতিমধ্যে ৪৭ হাজারের বেশি মানুষের প্রাণহানি ঘটেছে করোনাভাইরাসে। আক্রান্ত হয়েছেন ৯ লাখ ৩৫ হাজারের বেশি মানুষ। মৃত্যুর মিছিল বাড়ছে প্রতিদিন।

করোনায় মৃত্যুবরণকারীর দাফন-শেষকৃত্যও বেশ জটিল বিষয়। সংক্রমণের ভয়ে মৃত ব্যক্তির দাফন-জানাজা কিংবা শেষকৃত্যে অংশ নিচ্ছেন না স্বজনরাও।

মানুষের একটি সাধারণ ধারণা হচ্ছে- মৃত ব্যক্তির শরীর থেকেও করোনা ছড়িয়ে পড়তে পারে। কিন্তু বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, এই ধারণার কোনো প্রমাণ আজও মেলেনি।

কারণ মহামারীতে মারা যাওয়ার পর মানুষের শরীরে ওই এজেন্টের বেশিরভাগই দীর্ঘ সময় জীবিত থাকে না। তবে লাশের সঙ্গে সংস্পর্শ অব্যাহত রাখলে (কনস্ট্যান্টলি ইন কনকাক্ট উইথ করপসেস) যক্ষ্মা বা রক্তবাহিত ভাইরাসের সংক্রমণ ঘটতে পারে।

লাশ থেকে এ ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যগত কিছু ঝুঁকি থাকে। যেমন কেউ যদি কলেরা বা রক্তপ্রদাহজনিত জ্বরে (হেমোরেজিক ফিভার) মারা যান, তা হলে এটি ঘটতে পারে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা তার সবশেষ রিপোর্টে বলেছে, মারা যাওয়ার পর মানুষের শরীরে জীবাণুর বেশিরভাগই দীর্ঘ সময় জীবিত থাকে না।

থাইল্যান্ডের মেডিকেল সার্ভিসের মহাপরিচালক স্যামসাক আকাসিলিফ বিষয়টি আরও খোলাসা করে বলেছেন। তিনি ব্যাংকক পোস্টকে বলেন, কোনো ব্যক্তি ভাইরাসে মারা যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে জীবাণুও মরে যায়। তাই অন্য ব্যক্তির শরীরে সংক্রমণের সুযোগ কম।

মৃত ব্যক্তির দেহে ভাইরাসের দীর্ঘ সময় জীবিত থাকার সুযোগ নেই। এই ভাইরাস সর্বোচ্চ ৬ ঘণ্টা পর্যন্ত জীবিত থাকতে পারে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আরও বলেছে, যেসব মানুষ নিয়মিত লাশ দাফন বা এর দাফন প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত থাকেন, তাদের যক্ষ্মা, রক্তবাহিত ভাইরাস (যেমন হেপাটাইটিস-বি, সি ও এইচআইভি) এবং গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল (যেমন কলেরা, ই-কোলি, হেপাটাইটিস-এ, রোটাভাইরাস ডায়রিয়া, সালমানেলোসিস, শিগেলোসিস এবং টাইফয়েড/প্যারাটাইফয়েড জ্বরে) সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি থাকতে পারে।

সংস্থাটি জানায়, এসব তথ্য ও ঝুঁকির কথা একই সঙ্গে জরুরি বিভাগের কর্মী ও সাধারণ মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে দেয়া উচিত, যাতে যথাযথ পূর্বসতর্কতা অবলম্বন করা যায়, যখন মৃতদেহ নাড়াচাড়া করা হয়। একই সঙ্গে আতঙ্ক ও ভুল বোঝাবুঝি এড়ানো যায়।

করোনায় মৃত ব্যক্তির শরীরে কতক্ষণ ভাইরাস থাকতে পারে?
                                  

করোনাভাইরাসকে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ‘সবচেয়ে বড় সংকট’ বলে অভিহিত করেছে জাতিসংঘ। বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া এই মহামারী মানবসমাজকে ধাক্কা দিয়েছে চরমভাবে, মানুষের জীবন-জীবিকাও কেড়ে নিচ্ছে।

ইতিমধ্যে ৪৭ হাজারের বেশি মানুষের প্রাণহানি ঘটেছে করোনাভাইরাসে। আক্রান্ত হয়েছেন ৯ লাখ ৩৫ হাজারের বেশি মানুষ। মৃত্যুর মিছিল বাড়ছে প্রতিদিন।

করোনায় মৃত্যুবরণকারীর দাফন-শেষকৃত্যও বেশ জটিল বিষয়। সংক্রমণের ভয়ে মৃত ব্যক্তির দাফন-জানাজা কিংবা শেষকৃত্যে অংশ নিচ্ছেন না স্বজনরাও।

মানুষের একটি সাধারণ ধারণা হচ্ছে- মৃত ব্যক্তির শরীর থেকেও করোনা ছড়িয়ে পড়তে পারে। কিন্তু বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, এই ধারণার কোনো প্রমাণ আজও মেলেনি।

কারণ মহামারীতে মারা যাওয়ার পর মানুষের শরীরে ওই এজেন্টের বেশিরভাগই দীর্ঘ সময় জীবিত থাকে না। তবে লাশের সঙ্গে সংস্পর্শ অব্যাহত রাখলে (কনস্ট্যান্টলি ইন কনকাক্ট উইথ করপসেস) যক্ষ্মা বা রক্তবাহিত ভাইরাসের সংক্রমণ ঘটতে পারে।

লাশ থেকে এ ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যগত কিছু ঝুঁকি থাকে। যেমন কেউ যদি কলেরা বা রক্তপ্রদাহজনিত জ্বরে (হেমোরেজিক ফিভার) মারা যান, তা হলে এটি ঘটতে পারে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা তার সবশেষ রিপোর্টে বলেছে, মারা যাওয়ার পর মানুষের শরীরে জীবাণুর বেশিরভাগই দীর্ঘ সময় জীবিত থাকে না।

থাইল্যান্ডের মেডিকেল সার্ভিসের মহাপরিচালক স্যামসাক আকাসিলিফ বিষয়টি আরও খোলাসা করে বলেছেন। তিনি ব্যাংকক পোস্টকে বলেন, কোনো ব্যক্তি ভাইরাসে মারা যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে জীবাণুও মরে যায়। তাই অন্য ব্যক্তির শরীরে সংক্রমণের সুযোগ কম।

মৃত ব্যক্তির দেহে ভাইরাসের দীর্ঘ সময় জীবিত থাকার সুযোগ নেই। এই ভাইরাস সর্বোচ্চ ৬ ঘণ্টা পর্যন্ত জীবিত থাকতে পারে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আরও বলেছে, যেসব মানুষ নিয়মিত লাশ দাফন বা এর দাফন প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত থাকেন, তাদের যক্ষ্মা, রক্তবাহিত ভাইরাস (যেমন হেপাটাইটিস-বি, সি ও এইচআইভি) এবং গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল (যেমন কলেরা, ই-কোলি, হেপাটাইটিস-এ, রোটাভাইরাস ডায়রিয়া, সালমানেলোসিস, শিগেলোসিস এবং টাইফয়েড/প্যারাটাইফয়েড জ্বরে) সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি থাকতে পারে।

সংস্থাটি জানায়, এসব তথ্য ও ঝুঁকির কথা একই সঙ্গে জরুরি বিভাগের কর্মী ও সাধারণ মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে দেয়া উচিত, যাতে যথাযথ পূর্বসতর্কতা অবলম্বন করা যায়, যখন মৃতদেহ নাড়াচাড়া করা হয়। একই সঙ্গে আতঙ্ক ও ভুল বোঝাবুঝি এড়ানো যায়।

বাতাসে ৩ ঘণ্টা পর্যন্ত টেকে করোনাভাইরাস
                                  


করোনাভাইরাসে সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়ছে। প্রশ্ন উঠেছে, ভাইরাসটি মানবদেহের বাইরে কতক্ষণ টিকে থাকতে পারে। নতুন গবেষণায় দাবি করা হয়েছে, করোনাভাইরাস বাতাসে তিন ঘণ্টা পর্যন্ত টিকতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের চিকিৎসাবিষয়ক সাময়িকী নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অব মেডিসিন গত মঙ্গলবার গবেষণা নিবন্ধটি প্রকাশ করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রাচীনতম ও ঐতিহ্যবাহী চিকিৎসক সংঘ ম্যাসাচুসেটস মেডিকেল সোসাইটি সাময়িকীটি প্রকাশ করে। মার্কিন সরকারের অর্থায়নে গবেষণাটি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণবিষয়ক সংস্থা সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি), ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া, লস অ্যাঞ্জেলেস এবং প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক।

গবেষণায় বিজ্ঞানীরা দেখেছেন, ২০০২–২০০৩ সালে সংক্রমণ ছড়ানো সার্স–করোনা ভাইরাস মানবদেহের বাইরে যতক্ষণ টিকে থাকতে পারে, নতুন করোনাভাইরাসটিও প্রায় ততক্ষণই টিকে থাকতে পারে। তাঁদের ভাষ্য, এই গবেষণায় একটা ইঙ্গিত পাওয়া গেছে যে উপসর্গ দেখা দেওয়ার আগেই মানুষ থেকে মানুষে ছড়িয়ে পড়ে নতুন করোনাভাইরাস; যা বৈশ্বিক মহামারি হয়ে ওঠার একটি কারণ।

গবেষণা নিবন্ধে বলা হয়, করোনায় সংক্রমিত একজন রোগীর হাঁচি বা কাশি থেকে ভাইরাসটি ধরতে গবেষকেরা নেবুলাইজার ব্যবহার করেছেন। এই পরীক্ষায় দেখা গেছে, ভাইরাসটি মুখ বা নাকনিঃসৃত তরলকণা বা ড্রপলেটের মাধ্যমে বাতাসে ছড়িয়ে পড়ার পর প্রায় তিন ঘণ্টা পর্যন্ত টিকে থাকতে পারে। তামার ওপর এটি টিকে থাকে চার ঘণ্টা পর্যন্ত। আর প্লাস্টিক ও স্টেইনলেস স্টিলের ওপর টিকতে পারে দুই থেকে তিন দিন। কার্ডবোর্ডের ওপর এটি টিকতে পারে ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত।

তবে বিজ্ঞানীদের একটি মহল এই গবেষণার ফলাফলের বিরোধিতা করেছেন। তাঁদের দাবি, নতুন গবেষণায় ভাইরাসটির বাতাসে টিকে থাকার বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি করা হয়েছে। হাঁচি–কাশির মাধ্যমে মুখনিঃসৃত হওয়ার পর ভাইরাসটি ওই অবস্থায় মাত্র কয়েক সেকেন্ড টিকতে পারে। ওই বিজ্ঞানীরা নেবুলাইজারের মাধ্যমে রোগীর হাঁচি বা কাশির সময় যে পদ্ধতিতে ড্রপলেট ধারণ করা হয়েছে, সেই পদ্ধতি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

চীনের একদল গবেষক দেশটির হুবেই প্রদেশের উহান শহরের একটি হাসপাতালে করোনা সংক্রমিত রোগীদের ব্যবহৃত শৌচাগারে ভাইরাসটি শনাক্ত করেছেন। তাঁরা বলছেন, ভাইরাসটি বাতাসে টিকে থাকতে নিজেকে ধুলিকণার মতো সূক্ষ্ম কণায় রূপান্তরিত করে ওই সব শৌচাগারে টিকে ছিল। এ ছাড়া মলের ওপরও ভাইরাসটি পাওয়া গেছে। ওই বিজ্ঞানীরা বলেছেন, ২০০৩ সালে হংকংয়ের একটি আবাসিক এলাকায় একটি পয়োনিষ্কাশন লাইন ফুটো হওয়ার পর সার্স–করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছিল শতাধিক লোক। চীনের ওই গবেষণা নিবন্ধটি প্রকাশিত হওয়ার অপেক্ষায় রয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের সিডিসি, ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া, লস অ্যাঞ্জেলেস এবং প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা

সিডিসি, ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া, লস অ্যাঞ্জেলেস এবং প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক দলটিও একই ধরনের পরীক্ষা চালিয়ে নতুন করোনাভাইরাস ও সার্স–করোনাভাইরাসের তুলনা করেছে। এতে দেখা গেছে, দুই ভাইরাস একই ধরনের আচরণ করে। কিন্তু নতুন করোনাভাইরাসটি কেন এভাবে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ল, দুই লাখের বেশি মানুষকে সংক্রমিত করল, তার উপযুক্ত জবাব পাওয়া যায়নি গবেষণায়। সার্স–করোনাভাইরাসের সংক্রমণে প্রায় আট হাজার মানুষ সংক্রমিত হয়েছিল, প্রাণ গিয়েছিল প্রায় ৮০০ লোকের।

এ ব্যাপারে নতুন গবেষণা নিবন্ধে লেখা হয়েছে, নতুন করোনাভাইরাসের ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ার একটি কারণ হতে পারে উপসর্গ দেখা দেওয়ার আগেই তা মানুষ থেকে মানুষে সংক্রমিত হওয়া। নিবন্ধটিতে সবার সঙ্গে দূরত্ব বজায় রেখে চলতে, নাক–মুখ–চোখ স্পর্শ না করতে, হাঁচি–কাশির সময় মুখ ঢাকতে এবং হাতের পাশাপাশি ব্যবহার্য বস্তু ও তল বারবার জীবাণুমুক্ত করতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় ২ কোটি ডলার দিচ্ছে ফেসবুক
                                  

বিশ্ব যখন করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করছে তখন করোনা মোকাবিলায় ২০ মিলিয়ন বা ২ কোটি মার্কিন ডলার দানের প্রতিশ্রুতি দিল ফেসবুক। এ ছাড়া ফেসবুকের পক্ষ থেকে ইউনাইটেড নেশনস ফাউন্ডেশন ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) সঙ্গে একত্রে ‘কোভিড-১৯ সলিডারিটি রেসপন্স ফান্ড’ চালু করা হয়েছে। এ তহবিলে যে কেউ দান করতে পারবে।

শুক্রবার ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ এক পোস্টে বলেছেন, ফেসবুকের দান করা ১০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের সঙ্গে তহবিলে দান হিসেবে আসা সম্পূর্ণ অর্থ বিশ্বজুড়ে সরাসরি করোনা মোকাবিলা, শনাক্ত ও প্রতিরোধের কাজে ব্যয় হবে।

ফেসবুকের বাকি ১০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার যাবে সিডিসি ফাউন্ডেশনে। বেসরকারি এ সংস্থাটি যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাস ছড়ানো ঠেকাতে আগামী সপ্তাহ থেকে তহবিল সংগ্রহের কাজ শুরু করবে।

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ শুক্রবার তাদের বার্ষিক মুনাফার কিছু অংশ করোনাভাইরাস মোকাবিলার কাজে দেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানায়। জাকারবার্গ তাঁর পোস্টে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট টেকক্রাঞ্চ বলেছে, শুক্রবার চীনের গাড়ি ভাড়া করার প্রতিষ্ঠান ডিডি চুচিং তাদের আন্তর্জাতিক বাজারে চালক ও কুরিয়ারদের জন্য এক কোটি ডলার বিশেষ ত্রাণ তহবিল ঘোষণা করেছে।

অন্যান্য প্রযুক্তি জায়ান্টদের মধ্যে মাইক্রোসফট ও আমাজন এ সপ্তাহে কোভিড-১৯ রেসপন্স ফান্ডে ১০ লাখ মার্কিন ডলার করে দানের ঘোষণা দিয়েছে। কোভিড-১৯ এর ত্রাণ প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে গুগল ডটওআরজি ও গুগল কর্মী মিলে ১০ লাখ মার্কিন ডলার দান করেছেন। 

করোনাভাইরাসে বন্ধ হলো স্যামসাং মোবাইল কারখানা
                                  

দক্ষিণ কোরিয়ার গুমিতে একটি কারখানায় এক কর্মীর করোনাভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে স্যামসাং। শনিবার স্যামসাং ইলেকট্রনিকসের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তাদের একটি মোবাইল ডিভাইস ফ্যাক্টরিতে এক ব্যক্তির করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পর পুরো কারখানাটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সোমবার সকাল পর্যন্ত কারখানা বন্ধ থাকবে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিশ্বের বৃহত্তম সফটওয়্যার নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, আক্রান্ত ব্যক্তি যেখানে কাজ করতেন তা ২৫ ফেব্রুয়ারি সকাল পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। ওই ব্যক্তির সংস্পর্শে যারা এসেছিলেন তাদের নিজস্ব কোয়ারেনটাইনে (রোগ সংক্রমণের শঙ্কায় পৃথক রাখা) থাকতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া সম্ভাব্য সংক্রমণের আশঙ্কায় পরীক্ষা করতে বলা হয়েছে।

স্যামসাং জানিয়েছে, করোনাভাইরাসের কারণে যে কারখানা বন্ধ রাখতে হচ্ছে তাতে উৎপাদন ব্যাহত হবে খুব সামান্য। এখানে স্থানীয় বাজারের জন্য হাই-এন্ড ফোন তৈরি হয়। স্যামসাং সাধারণত তাদের অধিকাংশ ফোন ভারত ও ভিয়েতনামে তৈরি করে থাকে।

দক্ষিণ কোরিয়ার করোনাভাইরাস সবচেয়ে বেশি ছড়িয়ে পড়া দিয়েগু অঞ্চলের খুব কাছেই গুমি শহরটি।

দক্ষিণ কোরিয়ায় এক দিনের ব্যবধানে নতুন করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দ্বিগুণ হয়েছে। দেশটিতে বর্তমানে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪৩৩ জন। দক্ষিণ কোরিয়ায় এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে তিনজনে।

করোনার প্রভাব প্রযুক্তি পণ্যে
                                  

করোনা ভাইরাসের প্রভাব পড়তে শুরু করেছে প্রযুক্তি পণ্যেও। মোবাইল হ্যান্ডসেট ছাড়া সবকিছুতেই চরম সংকট শুরু হয়েছে। এই অবস্থা অব্যাহত থাকলে মোবাইল নেটওয়ার্কে ভয়াবহ বিপর্যয়ের আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্টরা। বাংলাদেশে মোবাইল নেটওয়ার্ক প্রধানত চীনা কোম্পানি হুয়াওয়ে ও জেডটিইর ওপর নির্ভরশীল। করোনার প্রভাব শুরু হওয়ার পর থেকেই চীনা প্রকৌশলীরা কাজে যাচ্ছেন না। ফলে অনেকটা জোড়াতালি দিয়েই চালানো হচ্ছে নেটওয়ার্ক সংস্কারের কাজ। এ অবস্থা অব্যাহত থাকলে বাজারে বড়ো ধরনের সমস্যা তৈরি হতে পারে। বিশেষ করে হাসপাতালের চিকিত্সা সংশ্লিষ্ট যন্ত্রপাতিও এখন আর আনা যাচ্ছে না।

টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘বিষয়টা এমন এখানে কারো কোনো হাত নেই। টেলিটকের নেটওয়ার্ক বিস্তারের জন্য কিছু যন্ত্রপাতি আনতে এলসি খোলা হয়েছিল, এখন সেগুলোও আসছে না। আমরা অনেক বেশি হুয়াওয়ে ও জেডটিইর ওপর নির্ভরশীল। ফলে তারা ঠিকমতো কাজ না করলে নেটওয়ার্কে সংকট তো হবেই। আর প্রযুক্তি মার্কেটটা আমরা অনেকাংশেই চীনের ওপর নির্ভরশীল। ফলে তাদের ওখানে কোনো সংকট হলে তার প্রভাব বাংলাদেশের বাজারে পড়াটা একেবারেই স্বাভাবিক।’

জানা গেছে, প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান অ্যাপল করোনা ভাইরাসের উত্পত্তিস্থল চীনের উহান থেকে বিভিন্ন পণ্যের সরবরাহ নিয়ে থাকে। কিন্তু অ্যাপলের আইফোন সংযোজনকারী প্রতিষ্ঠান বা অ্যাসেম্বলার ফক্সকন ও পেগাত্রন মধ্য জানুয়ারি থেকে বন্ধ রয়েছে। আগামী মার্চ পর্যন্ত বছরের প্রথম প্রান্তিকে চীন থেকে স্মার্টফোনের সরবরাহ ৪০ লাখ কমবে। মিকি অ্যান্ড মিনি মাউসসহ চীনে যুক্তরাষ্ট্রের যেসব থিম পার্ক রয়েছে, সেগুলোও এখন বিরান পড়ে আছে। থিম পার্ক বন্ধ রাখার কারণে তাদের পরিচালন আয় ২৮ কোটি মার্কিন ডলারের মতো কমতে পারে। চীনে থিম পার্কগুলো অন্তত দুই মাস বন্ধ রাখতে হবে বলে ধারণা করা হয়েছে।

তবে মোবাইল হ্যান্ডসেটের বাজারে কোনো প্রভাব পড়েনি। আগামী দুই তিন মাস এ পরিস্থিতি অব্যাহত থাকলেও মোবাইল সেটের দাম বাড়বে না। বাংলাদেশে ৯টি হ্যান্ডসেট কারখানা হয়েছে। এর মধ্যে দেশীয় বড়ো ব্র্যান্ড সিম্ফনি ছাড়াও স্যামসাংও ফ্যাক্টরি করেছে। এসব ফ্যাক্টরিতে দেশের চাহিদার অধিকাংশ সেটই উত্পাদন হচ্ছে। এখন সিম্ফনি দেশের চাহিদা মিটিয়ে ২০২২ সাল থেকে রপ্তানি বাজারে যাচ্ছে বলে ইত্তেফাককে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক জাকারিয়া শহীদ। তিনি বলেন, শিগিগরই দেশে সিম্ফনি মোবাইলের আরো দুটি কারখানা উত্পাদনে যাচ্ছে। স্মার্টফোনের পুরোটাই নিজেদের ফ্যাক্টরিতে উত্পাদন করছে সিম্ফনি। ছয় মাসের মধ্যে সিম্ফনির ফিচার ফোনও আর আমদানি করতে হবে না। জাকারিয়া শহীদ বলেন, স্মার্টফোনের অধিকাংশই এখন দেশে উত্পাদন হচ্ছে। ফলে হ্যান্ডসেটে সংকট হবে না।

মোবাইল অপারেটর রবির করপোরেট অ্যাফেয়ার্সের প্রধান শাহেদ আলম বলেন, ‘নেটওয়ার্কের বড়ো একটা অংশ তো আমরা তাদের ওপর নির্ভরশীল। তবে এখনো সংকট হয়নি। আমরা বিভিন্ন ধরনের ব্যাকআপ দিয়ে সবকিছু ঠিকঠাক রেখেছি। তবে সংকট দীর্ঘ মেয়াদি হলে নেটওয়ার্কে প্রভাব পড়তে পারে।’

প্রযুক্তি পণ্যের ব্যবসায়ী ও মোশান ভিউর স্বত্বাধিকারী ইমরুল হাসান বলেন, ‘আসলে ডিসেম্বরের মাঝামাঝি থেকে চীন থেকে পণ্য আনা বন্ধ হয়ে গেছে। প্রথমে বড়দিন, এরপর নববর্ষ, তারপর শুরু হলো করোনা ভাইরাসের প্রভাব। তাই প্রায় দুই মাস বন্ধ রয়েছে পণ্য আসা। আমরা প্রতি সপ্তাহেই চাহিদা অনুযায়ী পণ্য আনি। দ্রুত হলে কার্গোতে, আর সময় থাকলে জাহাজে পণ্য আসে। এখন জাহাজে আসা কিছু পণ্য খালাস হতে বাকি। সেগুলো এলে কিছুদিন চলবে। এরপর যে ক্রাইসিস শুরু হবে, সেটা হবে ভয়াবহ। বিশেষ করে আমার গোডাউনে থাকা মালামাল এরই মধ্যে শেষ হয়ে গেছে। এখন প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে হবে। এমন পরিস্থিতি ছোটোখাটো আরো অনেক ব্যবসায়ীর। এখন দোকানে থাকা পণ্যগুলো ভরসা।’

পিআরপি ইন্টারন্যাশনালের স্বত্বাধিকারী শেখ আব্দুল্লাহ ইত্তেফাককে বলেন, ‘এখনো মার্কেটে বড়ো ধরনের ক্রাইসিস শুরু হয়েছে সেটা বলা যাবে না। কিছু পণ্য পাইপলাইনে আছে। সেগুলো শেষ হলে ক্রাইসিস শুরু হবে। এখনো দোকানগুলোতে যে মালামাল আছে তা দিয়ে হয়তো এক সপ্তাহ থেকে ১০ দিন চলবে। এর মধ্যে নতুন পণ্য না আনতে পারলে সংকট ভয়াবহ রূপ নেবে।’ এখন কি এসব পণ্যের দাম বেড়েছে? জবাবে তিনি বলেন, ‘এখনো খুব একটা বাড়েনি। তবে বেড়ে যেতে পারে। আসলে হাসপাতালের চিকিত্সা সরঞ্জামও আটকে গেছে। অনেক জরুরি যন্ত্রপাতি নিয়মিত চীন থেকে আনতে হয়। এখন সেগুলো আসছে না। দ্রুত সমস্যার সমাধান না হলে সামনের দিনে আমরা বড়ো একটা সংকটে যে পড়তে যাচ্ছি, সেটা তো বলাই যায়।’

আপনার সম্পর্কে যা বলে স্মার্টফোন
                                  

মোবাইল ফোন ছাড়া আজকাল আমাদের একদম চলে না। এটি আমাদের জীবনের খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ হয়ে উঠেছে। বহু মানুষ গড়ে দিনে পাঁচ ঘণ্টা পর্যন্ত স্মার্টফোন ব্যবহার করেন। কেউ আইফোন ব্যবহার করেন, কেউবা আবার অ্যান্ডয়েড। কারোর জন্য এসব ফোনের গতি গুরুত্বপূর্ণ। কেউ হয়তো ভালো ছবি তোলে এমন ফোন পছন্দ করেন। অনেকে আবার দেখতে সুন্দর এমন ফোন বেছে নেন। স্মার্টফোন কেনার ক্ষেত্রে সবারই নানা ধরনের পছন্দ রয়েছে। বিশ্বে যত স্মার্টফোন বিক্রি হয় তার মধ্যে ৯০ শতাংশই অ্যান্ড্রয়েড ও আইফোন। সম্প্রতির হিসেবে গুগলের অ্যান্ড্রয়েড ছিল বিশ্বের সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় অপারেটিং সিস্টেম। যা বাজারের ৮৮ শতাংশই দখল করে রেখেছিল। অন্যদিকে অ্যাপলের আইওএস ১২ শতাংশ নিয়ে ছিল দ্বিতীয় অবস্থানে।

স্মার্টফোন আপনার সম্পর্কে কি বলে?

যুক্তরাজ্যের লিংকন বিশ্ববিদ্যালয় এবং ল্যাংক্যাস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের মনোভাব বোঝার জন্য একটি গবেষণা চালিয়েছেন। ঐ গবেষকরা বলছেন একজন মানুষ কি ধরনের স্মার্টফোন ব্যবহার করছেন সেটি দিয়ে তার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য ও স্বভাব বোঝা সম্ভব। যেমন ধরুন, আইফোন ব্যবহারকারীদের তুলনায় অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা বেশি ন্যায়বান হয়ে থাকে। অন্তত তারা যাদের মধ্যে গবেষণা চালিয়েছেন তাদের মধ্যে এরকম দেখা গেছে। আইফোন ব্যবহারকারীরা সাধারণত কম বয়সি হয়ে থাকেন। অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীদের তুলনায় তারা বেশি খোলামেলা হয়ে থাকেন। বয়স্ক পুরুষদের অ্যান্ড্রয়েড পছন্দ বেশি। নারীরা আইফোন বেশি পছন্দ করেন। পুরুষদের তুলনায় নারীদের মধ্যে আইফোন ব্যবহারকারী কেন বেশি তা বোঝা যায়নি।

চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের সঙ্গে স্মার্টফোনের কি সম্পর্ক?

গবেষকরা বলছেন, স্মার্টফোনের মাধ্যমে ব্যক্তি তার ইচ্ছে পছন্দের বিষয়টি প্রকাশ পায়। এর মাধ্যমে সে নিজেকে প্রকাশ করে। গবেষণার প্রধান লেখক হেদার শ বলছেন, ‘দিনকে দিন এটি পরিষ্কার হচ্ছে—একটি স্মার্টফোন সেটি ব্যবহারকারী ব্যক্তির ডিজিটাল সংস্করণ হয়ে উঠছে।’ তিনি বলছেন, ‘আমাদের ফোন যখন কেউ ব্যবহার করার চেষ্টা করে আমরা অনেকেই সেটি পছন্দ করি না কারণ আমাদের ফোন আমাদের সম্পর্কে অনেক কিছু প্রকাশ করতে পারে।’

গবেষণায় আরো দেখা গেছে যাদের হাতে আইফোন আঠার মতো লেগে থাকে তারা যে অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীদের থেকে বেশি বিত্তবান তা কিন্তু নয়। তবে আইফোন ব্যবহারকারীরা এই ফোনকে সামাজিক উচ্চ মর্যাদার নিদর্শন মনে করেন বলে গবেষণায় উঠে এসেছে। আইফোন ব্যবহারকারীদের বেশি আবেগপ্রবণ মনে হয়েছে। এই গবেষকদের দল একটি কম্পিউটার প্রোগ্রাম তৈরি করেছেন। কয়েকটি প্রশ্ন করে ঐ কম্পিউটার প্রোগ্রাম ৭০ শতাংশ ক্ষেত্রেই বলে দিতে পারে একজন ব্যক্তি কি স্মার্টফোন ব্যবহার করছেন। একজন ব্যক্তি স্মার্টফোনে কোনো অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করছেন সেটিও তার সম্পর্কে অনেক কিছু বলে দেয়।

মোবাইল ফোন কি গোয়েন্দাগিরি করছে?

যখন আমরা বিনামূল্যের কোনো অ্যাপ ডাউনলোড করি আর সেটিতে নানা শর্তে সম্মতি দেই, তখন কি আমরা একবারও ভেবে দেখেছি যে, এসব অ্যাপ আমাদের সম্পর্কে কতটা তথ্য জানতে পারছে? কোনো অ্যাপ ডাউনলোড করার সময় অনেকগুলো শর্ত আসে বা সম্মতি চাওয়া হয়। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই এগুলো না পড়ে সবাই ‘ওকে’ করে দেন। তার মানে সেই অ্যাপটিকে ফোনের অনেক তথ্যে প্রবেশাধিকার দেওয়া হলো। এসব তথ্যের মধ্যে রয়েছে বন্ধুদের সঙ্গে আমরা কি কথা বলি বা কি বার্তা পাঠাই, পরিবারের সদস্যদের ফোন নম্বর, মোবাইলের ছবি বা ভিডিও এমনকি আমাদের আর্থিক তথ্যও।

তাহলে কি করা উচিত?

ভারতে এখন এ ধরনের কোম্পানিগুলোর বিরুদ্ধে আইন করার দাবি উঠছে। অনেকে বলছেন, যেহেতু এসব কোম্পানি সাধারণ নাগরিকদের তথ্য বিক্রি করে কোটি কোটি টাকা আয় করে, এসব টাকার ভাগ এই নাগরিকদেরও পাওয়া উচিত। তবে এর সবচেয়ে বড়ো সমাধান হলো—যখনি কোনো অ্যাপ ব্যবহার করা হবে, তখনি খুব ভালো করে দেখে নেওয়া যে, সেটি ব্যক্তিগত তথ্যের মধ্যে কতটা নাক গলাতে চায়। আপনি এসব অ্যাপকে আপনার বিষয়ে তথ্য সংগ্রহে কতটা অনুমতি দিতে চান, সেটাও আপনার ওপরই নির্ভর করছে।

সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ প্রীতরাজ সিং বলছেন, ‘মোবাইল, অ্যাপ বা ইন্টারনেটে আপনি আপনার নিজের সম্পর্কে যত কম তথ্য দেবেন, তত নিরাপদ থাকবেন। কারণ আমাদের কারো জানা নেই, আজ থেকে ১০/২০ বছর পরে এসব তথ্যের কি হবে।

ফেসবুক আনল নতুন ফিচার
                                  

ফেসবুক অ্যাকাউন্ট দিয়ে ভিন্ন কোনো ওয়েবসাইট বা অ্যাপে লগইন করা হলে তা সঙ্গে সঙ্গে ব্যবহারকারীকে জানানো হবে। সম্প্রতি ফেসবুক নতুন এ ফিচারটি চালু করেছে। ফেসবুক নোটিফিকেশনস নামের ফিচারটি ফেসবুক লগইন অংশে যুক্ত হয়েছে।

ফেসবুক লগইন এমন একটি পদ্ধতি, যা ব্যবহারকারীকে তার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট দিয়ে কোনো কোনো তৃতীয় পক্ষ (থার্ড পার্টি) অ্যাপে লগইন করতে দেয়। এতে ওই সাইট বা অ্যাপের জন্য নতুন করে অ্যাকাউন্ট খোলার প্রয়োজন পড়ে না।

চলতি সপ্তাহ থেকে ফেসবুক লগইন ফিচার দিয়ে কোনো থার্ড পার্টি অ্যাপে বা সাইটে ঢোকা হলে তা ফেসবুক অ্যাপ, ওয়েবসাইট ও ই–মেইলে নোটিফিকেশন আকারে চলে আসবে। এতে ব্যবহারকারী তাঁর অ্যাকাউন্ট কোথাও অবৈধভাবে ব্যবহৃত হচ্ছে কি না, বুঝতে পারবেন। অ্যাপে লগইনের সময় কী কী তথ্য দিচ্ছেন, সে বিষয়েও শিক্ষা নিতে পারবেন।

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বলছে, তারা নোটিফিকেশনকে এমনভাবে নকশা করেছে, যাতে কোনো থার্ড পার্টি ওয়েবসাইট ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে কী কী তথ্য নিচ্ছে, এর তালিকা থাকবে। এতে থার্ড পার্টির পক্ষে সব ধরনের তথ্য সংগ্রহ করা সম্ভব হবে না। এতে ব্যবহারকারীর হাতে তথ্য বিনিময়সংক্রান্ত নিয়ন্ত্রণ থাকবে। সেটিংসে গিয়ে সম্পাদনা করার সুযোগও থাকবে।

ফেসবুকের সফটওয়্যার প্রকৌশলী পুক্সুয়ান শি বলেছেন, ফেসবুকের তথ্য অপব্যবহারের বিষয়ে ব্যবহারকারী যাতে দ্রুত পদক্ষেপ নিতে পারেন, সে ব্যবস্থা করা হয়েছে। এ সেবা আরও উন্নত করতে কাজ করবে ফেসবুক।

বাংলাদেশের জন্য কর্মী নিয়োগ দেবে ফেসবুক
                                  

ফেসবুকের বাংলাদেশের বাজার দেখার জন্য মার্কেট স্পেশালিস্ট পদে লোক নিয়োগ দেবে ফেসবুক। সিঙ্গাপুরে ফেসবুকের এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের কার্যালয়ে কাজ করতে হবে ওই কর্মীকে। ফেসবুক বাংলাদেশের জন্য কর্মী নিয়োগ সংক্রান্ত বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করছে।

ফেসবুকের ওই বিজ্ঞাপনে বলা হয়, পূর্ণকালীন চাকরির ওই পদে ফেসবুক ব্যবহারকারীকে নানা রকম সহযোগিতা করতে হবে। দক্ষিণ এশিয়া ও বৈশ্বিক মার্কেটের জন্য প্রয়োজনে সহযোগিতা করতে হবে। এ ছাড়া ফেসবুকের জন্য নানা ধরনের সুযোগ বের করতে হবে। বিভিন্ন সংকেত বিশ্লেষণ করে প্রয়োজনীয় ইনসাইট তৈরি করতে হবে। বাংলা ও ইংরেজি ভাষায় যোগাযোগে যথেষ্ট পারদর্শী হতে হবে।

৫ বছরের কাজের অভিজ্ঞতা ও মাস্টার্স ডিগ্রিধারীরা আবেদন করতে পারবেন। ডেটা অ্যানালাইসিস ও ভিজুয়ালাইজেশনে দক্ষ হতে হবে। ফেসবুকের ক্যারিয়ার পেজে গিয়ে ওই পদে আবেদন করতে পারবেন।

এর আগে ফেসবুকের সিঙ্গাপুর অফিসের কর্মকর্তারা জানান, বাংলাদেশের জন্য আপাতত কোনো অফিস খোলার পরিকল্পনা তাঁদের নেই। তবে বাংলাদেশের বাজার উন্নয়নে তাঁর কাজ করতে চান। এ ছাড়া দেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসায়ীদের নিয়ে কাজের কিছু পরিকল্পনা রয়েছে তাঁদের।

স্বপ্নের কম্পিউটার
                                  

অনেক দিন ধরেই হবে-হবে করছিল, শেষ পর্যন্ত হয়েই গেল। কী? কোয়ান্টাম কম্পিউটার। তথ্য প্রযুক্তির স্বপ্ন পূরণ। 

গুগল কোম্পানির এআই কোয়ান্টাম টিম পেয়েছে সাফল্য। যে সাফল্যের পিছনে ধাওয়া করছিল তাবড় তাবড় থেকে শুরু করে অনেক স্টার্টআপ সংস্থাও। আইবিএম থেকে এমআইটি, ক্যালটেক প্রভৃতির গবেষকেরা। হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের মাঝে গুগল-এর গবেষকেরা তৈরি করে ফেললেন স্বপ্নের কম্পিউটার। আজ, বৃহস্পতিবার, প্রকাশিত হচ্ছে ‘নেচার’ জার্নালের যে সংখ্যাটি, তাতে গুগল-এর বিজ্ঞানীরা তাঁদের সাফল্যের বর্ণনা দিচ্ছেন।

ওঁদের বিজ্ঞানীরা তৈরি করেছেন ‘সিকামোর’ প্রসেসর, এমন যন্ত্রগণক যা সাড়ে তিন মিনিটে করে ফেলবে সেই গণনা, যা এখনকার কম্পিউটার করতে পারে দশ হাজার বছরে। স্বভাবতই অনেক বিশেষজ্ঞ এই সাফল্যকে বলেছেন ‘কিটি হক মুহূর্ত’। রাইট ভাইদের সেই মাত্র ১২ সেকেন্ডের উড়ান, যা শুরু করেছিল আজকের বিমান যাত্রা। ওই যে এখনকার কম্পিউটারের দশ হাজার বছরের কাজ মাত্র সাড়ে ৩ মিনিটে করে ফেলা, এটাকেই তথ্য প্রযুক্তির পরিভাষায় বলা হয় ‘কোয়ান্টাম সুপ্রিমেসি’ (এখনকার কম্পিউটারকে টেক্কা দেওয়া)। ২০১২ সালে বিজ্ঞানী জন প্রেসকিল ওই শব্দবন্ধ উদ্ভাবন করেন। অবশ্য ওঁর প্রশ্ন ছিল, ‘তেমনটা কি সম্ভব হবে কখনও?’ তা-ই হয়েছে।

নাম কেন কোয়ান্টাম কম্পিউটার? উত্তর সহজ। এখনকার কম্পিউটার কাজ করে বিদ্যুতের সুইচ অন অথবা অফ হয়ে। আর কোয়ান্টাম কম্পিউটারে একই মুহূর্তে সুইচ অন এবং অফ দু’টোই একসঙ্গে। এটা যেন কোয়ান্টাম মেকানিক্সের অন্যতম জনক আরউইন শ্রয়েডিঙ্গার-এর কল্পিত পরীক্ষার মতন। কোয়ান্টাম যে অদ্ভূতুড়ে, সেটা বোঝাতে শ্রয়েডিঙ্গার ওই কাল্পনিক পরীক্ষার কথা বলেছিলেন। যেখানে ডালাবন্ধ একটা বাক্সের মধ্যে আছে একটা হাতুড়ি, পটাশিয়াম সায়নাইড ভর্তি শিশি এবং একটা বিড়াল। কোয়ান্টাম মেকানিক্স কোনও কিছুই নিশ্চিত করে বলে না, তার কাছে সব কিছুই সম্ভাবনা। মানে, হাতুড়ির ঘা বিষ ভর্তি শিশির গায়ে পড়ার সম্ভাবনার কথাই শুধু বলে কোয়ান্টাম। তা হলে? হাতুড়ির ঘা শিশির গায়ে পড়েছে এবং পড়েনি। অর্থাৎ, পটাশিয়াম সায়নাইড বাক্সের মধ্যে ছড়িয়েছে এবং ছড়ায়নি। ফলে বেড়ালটা মরেছে এবং মরেনি। ডালাবন্ধ অবস্থায় একটার বদলে দু’টো বেড়াল। জীবিত ও মৃত। আর বাক্সের ডালা খুললে? তখন একটাই বেড়াল। জীবিত অথবা মৃত। ডালা খোলা মানে কোয়ান্টামের জগৎ থেকে বেরিয়ে আসা। ডালাবন্ধ অবস্থায় ওই যে ‘অথবা’ দূরে চলে গিয়ে ‘এবং’ দশা, সেটাই কোয়ান্টাম। সেই জন্যই কোয়ান্টাম কম্পিউটারে ইলেকট্রিক সুইচ অন এবং অফ দু’টোই একসঙ্গে।

গুগল কোম্পানির সাফল্যে প্রতিযোগী সংস্থাগুলি যারপরনাই ঈর্ষান্বিত। আইবিএম বলেই দিয়েছে, ‘ও কিস্যু না, অচিরেই ভুল প্রমাণিত হবে ওদের সাফল্য’। গুগল কিন্তু কোমর বেঁধে নেমেছে। মাসখানেক আগে এক বার সাফল্যের রিপোর্ট বার করেও প্রত্যাহার করে নিয়েছিল গুগল। আজ প্রখ্যাত ‘নেচার’ জার্নালে রিপোর্টটি প্রকাশিত।  

সূত্রঃ আনন্দ বাজার

এল নতুন ইন্টারনেট সেবা ‘ব্রডব্যান্ড ৩৬০ ডিগ্রি’
                                  

দেশে চালু হচ্ছে নতুন ইন্টারনেট সেবা ‘ব্রডব্যান্ড ৩৬০ ডিগ্রি’। ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটভিত্তিক এ সেবার অধীনে দ্রুতগতির ১০০ এমবিপিএস ইন্টারনেট ও নিরাপদ ইন্টারনেট, পরিবেশবান্ধব ফোন, আইপিটিভি ও ভিওডি সেবা পাওয়া যাবে। আজ সোমবার রাজধানীর একটি হোটেলে আনুষ্ঠানিকভাবে নতুন সেবার ঘোষণা দিয়েছে ব্রডব্যান্ড ৩৬০ ডিগ্রি কর্তৃপক্ষ। এটি বিডিকম অনলাইন লিমিটেডের একটি নতুন ব্র্যান্ড।

ব্রডব্যান্ড ৩৬০ ডিগ্রির সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, তারা মূলত দুই ধরনের সেবা চালু করছেন। একটি ব্রডব্যান্ড ৩৬০ ডিগ্রি হোম ও আরেকটি ব্রডব্যান্ড ৩৬০ ডিগ্রি বিজনেস। দুটি সেবার অধীনে দুই ধরনের প্যাকেজ থাকছে। ভেলোসিটি আলট্রা সেবায় থাকছে ১০০ এমবিপিএস আর ভেলোসিটি সুপারে থাকছে ৭৫ এমবিপিএস গতি। । ভেলোসিটি হোমে প্যাকেজ দুটির মাসিক খরচ যথাক্রমে ৩ হাজার ৯৯৯ টাকা ও ২ হাজার ৯৯৯ টাকা। ভেলোসিটি বিজনেস সেবার খরচ যথাক্রমে ১১ হাজার ও ৯ হাজার ৯৯৯ টাকা।

 

বিডিকম অনলাইন লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এস এম গোলাম ফারুক আলমগীর বলেন, তাঁরা মূলত নিরাপদ ইন্টারনেটের ধারণা থেকে নতুন সেবা চালু করেছেন। তাদের সেবায় ইন্টারনেট গ্রহীতারা শিশুদের জন্য ইন্টারনেটে বিশেষ ব্যবস্থা নিতে পারবেন। তাদের হাতে বিশেষ নিয়ন্ত্রণ থাকবে। ডিজিটাল বাংলাদেশের রূপকল্পের সঙ্গে মিলিয়ে নতুন সেবা এনেছে ব্রডব্যান্ড ৩৬০ ডিগ্রি। বাড়িতে বা অফিসে বসেই সেবা নেওয়া যাবে।

এস এম গোলাম ফারুক আলমগীর প্রথম আলোকে বলেন, শুরুতে ঢাকা শহরে তাদের সেবা চালু হচ্ছে। ঢাকার প্রায় সব এলাকায় তাদের সেবা প্রস্তুত। ১৪ এপ্রিল থেকে তাদের বাণিজ্যিক কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হবে। যেকোনো সমস্যায় হেল্প ডেস্কে ফোন করে সাহায্য পাওয়া যাবে। শিগগিরই সারাদেশেই তারা সেবা চালু করবেন। ব্রডব্যান্ড ৩৬০ ডিগ্রির অর্থ ব্রডব্যান্ডের সব সেবা। এটি ট্রিপল প্লে সেবা অর্থাৎ, এতে ইন্টারনেট, ফোন ও টিভির সেবা পাওয়া যাবে। এর আগে আইপিটিভির লাইসেন্স না থাকায় তা চালু হয়নি। সম্প্রতি এ সার্ভিস পরিচালনার অনুমতি পেয়েছে ব্রডব্যান্ড ৩৬০ ডিগ্রি।

ফারুক আলমগীর আরও বলেন, ব্রডব্যান্ড ৩৬০ ডিগ্রির অধীনে ডিজিটাল মাধ্যম যেমন ল্যাপটপ, ডেস্কটপ, স্মার্টফোন, ট্যাব, স্মার্টটিভিতে সরকার অনুমোদিত দেশি বিদেশি টিভি চ্যানেল উপভোগ করতে পারবেন। এর মাধ্যমে নিরাপদ ইন্টারনেট টুল ও রাউটার পাবেন গ্রাহক, যার মাধ্যমে ৫৭ ধরনের ক্যাটাগরির কনটেন্ট ফিল্টার করা যাবে।

আরও ১৩১৪ পর্নসাইট বন্ধ করা হবে : তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী
                                  

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, আরও ১ হাজার ৩১৪টি পর্নসাইট বন্ধের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এছাড়া ইন্টারনেটে জুয়া খেলা হয় এমন ১২টি সাইট চিহ্নিত করে সেগুলোও বন্ধ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী শুক্রবার তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে এক স্ট্যাটাসে এই তথ্য জানান।

মন্ত্রী লিখেছেন, ২৪৪টি পর্নসাইট এরই মাঝে বন্ধ করা হয়েছে। আমাদের টিম আরও ১ হাজার ৩১৪টা পর্ন সাইটের সন্ধান পেয়েছে। আমরা এগুলো বন্ধ করার কাজে হাত দিয়েছি। আশা করি সহসাই এখানে সফলতা আসবে। আমরা যেমনি ডিজিটাল হচ্ছি, তেমনি ডিজিটাল নিরাপত্তাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছি। শিশুসহ দেশের সব নাগরিককে ডিজিটাল বিশ্বে নিরাপত্তা বিধান করা আমাদের প্রত্যয়। আমরা করবো জয়।’

 

তিনি আরও লিখেছেন, বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। পর্যায়ক্রমে সব বন্ধ করা হবে। এছাড়া ইন্টারনেটে জুয়া খেলার ১২টি সাইট পেয়েছি। সেগুলো বন্ধ করছি। ডিজিটাল বাংলাদেশ হোক নিরাপদ।

উল্লেখ্য, গত বুধবার (০৬ ফেব্রুয়ারি) ২৪৪টি পর্ন ওয়েবসাইট বন্ধের নির্দেশ দেয় টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি। বিটিআরসি দেশের সবকটি আইআইজিকে (ইন্টারন্যাশনাল ইন্টারনেট গেটওয়ে) এই নির্দেশনা পাঠিয়ে অবিলম্বে নির্দেশনা কার্যকর (ডোমেইন ও লিংক বন্ধ) করতে বলে।

হোয়াটসঅ্যাপে দৈনিক ২০০ কোটি ঘণ্টার বেশি কল করা হচ্ছে
                                  

বিশ্বজুড়ে দিন দিন জনপ্রিয়তা বাড়ছে ফেসবুকের মালিকানাধীন হোয়াটসঅ্যাপের। বর্তমানে ১২০ কোটির বেশি ব্যবহারকারী রয়েছে হোয়াটসঅ্যাপের। হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ গতকাল মঙ্গলবার বলেছে, হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীরা এ প্ল্যাটফর্মে দৈনিক ২০০ কোটি ঘণ্টার বেশি সময় কল করে কাটান।

হোয়াটসঅ্যাপে গতকাল থেকেই গ্রুপ কলের ক্ষেত্রে ভয়েস ও ভিডিও কল সুবিধা চালু হয়েছে। হোয়াটসঅ্যাপের এক ব্লগ পোস্টে বলা হয়েছে, গত কয়েক বছরে হোয়াটসঅ্যাপে ভয়েস ও ভিডিও কল উপভোগ করছে মানুষ। ব্যবহারকারীরা ২০০ কোটি ঘণ্টার বেশি এ প্ল্যাটফর্মে সময় কাটাচ্ছেন।

ব্যবহারকারী একে একে চারজনকে কল দিয়ে গ্রুপ কল তৈরি করতে পারবেন এবং ‘অ্যাড পার্টিসিপেন্ট’ চাপ দিয়ে কন্টাক্ট যুক্ত করতে পারবেন। এ কল এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপটেড বলে দাবি করেছে হোয়াটসঅ্যাপ। এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, গত বছর অক্টোবর মাসে প্রথম এই ফিচার দেখা গেলেও এই বছর মে মাসে ডেভেলপার কনফারেন্সে প্রথম এই ফিচার সামনে এনেছিল ফেসবুক। অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএসের সব গ্রাহক নতুন গ্রুপ ভিডিও ও ভয়েস কলের ফিচার ব্যবহার করতে পারবেন। একসঙ্গে চার ব্যক্তির সঙ্গে এই গ্রুপ কল করা যাবে।

২০১৬ সালে প্রথম এর ভিডিও কল ফিচার যোগ হয়েছিল। হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ বলেছে, ধীরগতির নেটওয়ার্কেও ভালো কাজ করবে এ গ্রুপ কলিং ফিচার। আগের মতোই সব কল এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপটেড থাকবে। গ্রুপ ভিডিও কল করার জন্য প্রথমে একজনকে ভিডিও কল করতে হবে। এরপরে ডান দিকে ওপরে নতুন পার্টিসিপেন্ট যোগ করার অপশন চলে আসবে।

ফেসবুক মেসেঞ্জার ভয়েস কলে একসঙ্গে ৫০ জন যোগ দিতে পারেন। স্কাইপে এই সংখ্যা ২৫।

ইউটিউব থেকে সরাসরি ডাউনলোডের সহজ উপায়
                                  
অনলাইন ডেস্ক : ইউটিউবে খুব সহজেই খুঁজে পাওয়া যায় বিভিন্ন ভিডিও, গান ও সিনেমা। পছন্দ হওয়া ভিডিওটি ডাউনলোড করতে হচ্ছে হয় অনেকেরই কিন্তু, তা ডাউনলোড করতে অনেক ঝামেলা ভেবে ডাউনলোড থেকে বিরত থাকেন তারা। অনেকে আবার ডাউনলোডের জন্য বিভিন্ন অ্যাপও ব্যবহার করে থাকেন।
 
এখন চাইলে আপনি আরো সহজে আপনার পছন্দের ভিডিওটি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। অ্যাড্রেসবারে থাকা  http://www.youtube.com/ ঠিকানায় গিয়ে। www. এর পর ছোট হাতের দুইটি ss লিখতে হবে অর্থাৎ http://www. ssyoutube. com/ লিখতে হবে আপনাকে। এবার এন্টার চাপ দিলেই চলে যাবে নতুন একটি পেইজে। নতুন পেইজটিতে কয়েকটি ফরমেটে থাকবে আপনার কাঙ্ক্ষিত ভিডিওটি। আপনি ওখান থেকে আপনার পছন্দ মেতো একটি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।
পিকাবু নিয়ে এলো ‘ঈদ উইক ২০১৭’
                                  
বিশ্ব মানচিত্র অনলাইন ডেস্ক : পবিত্র ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে পিকাবু নিয়ে এলো দেশের সর্ববৃহৎ অনলাইন ইলেকট্রনিক্স মেলা ‘ঈদ উইক ২০১৭’। 
 
১৫ থেকে ২২ আগস্ট পর্যন্ত আপনি পাচ্ছেন টিভি, এসি, স্মার্টফোন, কিচেন এপ্লায়েন্স, ল্যাপটপসহ বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স পণ্যের উপর দারুন ডিসকাউন্ট এবং অফার।
 
আপনার শপিং অভিজ্ঞতাকে সহজ করতে পিকাবুর বিভিন্ন পেমেন্ট অপশন থেকে বেছে নিতে পারবেন আপনার পছন্দের অপশনটি, যেমন: ক্যাশ-অন-ডেলিভারি, কার্ড-সোয়াইপ-অন-ডেলিভারি এবং অনলাইন পেমেন্ট। ক্রেডিট কার্ডধারীদের জন্য রয়েছে ইন্টারেস্ট বিহীন কিস্তির সুবিধা।
 
পিকাবু থেকে ক্রয় করলে গ্রাহকরা আরও উপভোগ করতে পারছেন ৩ দিনের প্রোডাক্ট রিটার্ন পলিসি। অর্ডারকৃত পণ্যের ডেলিভারি ঢাকার ভেতর হলে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে এবং ঢাকার বাইরে হলে ৯৬ ঘণ্টার মধ্যে দেয়া হবে। অর্ডার করতে ভিসিট করুন: https://www.pickaboo.com/campaign/pickaboo-eid-week.html
 
৭ হাজারেরও বেশি ইলেকট্রনিক পণ্যের সমাহার এবং উন্নত অনলাইন সার্ভিসের মাধ্যমে অল্প সময়ইে জনপ্রয়িতার র্শীষে পৌঁছে গেছে দেশের জনপ্রিয় অনলাইন শপ পিকাবু। ‘ডেলিভারিং হেপিনেস’ স্লোগান নিয়ে পিকাবু ডট কম বর্তমানে দেশের সর্বত্র পণ্য সরবরাহ করছে।
 
আজ সূর্যগ্রহণ: যেসব কথায় কান দেবেন না
                                  

অনলাইন ডেস্ক : আজ মধ্যদুপুরে সন্ধ্যার আঁধার নেমে আসবে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটির সংযুক্ত সীমানার ৪৮টি রাজ্যে দিনের আলো গ্রাস করে নেবে পূর্ণ সূর্যগ্রহণ। আশপাশের অঞ্চল থেকেও দেখা যাবে আংশিক গ্রহণ। তবে বাংলাদেশে এ সূর্যগ্রহণ দেখা যাবে না, গ্রহণের সময় যে বাংলাদেশ সময় রাত নয়টায়।
পৃথিবী আর সূর্যের মাঝখানে চাঁদ এসে পড়লে সূর্যগ্রহণ ঘটে। পূর্ণ সূর্যগ্রহণে চাঁদের ব্যাস সূর্যের ব্যাসের তুলনায় বড় দেখায়। এতে একটি পৃথিবীর বড় অংশজুড়ে সরাসরি সূর্যের আলো পড়ে না।
আজকের সূর্যগ্রহণ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে বেশ শোরগোল চলছে কিছুদিন ধরে। এ অঞ্চলে যে সর্বশেষ পূর্ণ সূর্যগ্রহণ দেখা গিয়েছিল ১৯১৮ সালে। যুক্তরাষ্ট্রের মূল ভূখণ্ডে ১৯৭৯ সালের পর আর কোনো সূর্যগ্রহণ দেখা যায়নি।
বিস্ময়কর হলেও সত্য, বিজ্ঞানের চরম উৎকর্ষ ঘটলেও সূর্য বা চন্দ্রগ্রহণ নিয়ে এখনো মানুষের মধ্যে কুসংস্কার রয়েছে। প্রথম আলোর উত্তর আমেরিকার বিশাল পাঠকগোষ্ঠীর জন্য এমনই কিছু কুসংস্কার সম্পর্কে জানানোর জন্য এই বিশেষ আয়োজন—

সূর্য গিলে খাচ্ছে ড্রাগন
চৈনিক সভ্যতাসহ বেশ কিছু আমেরিকান ও ইউরোপীয় সভ্যতায় সূর্যগ্রহণের কারণ হিসেবে ড্রাগনের উল্লেখ আছে। ‘গেম অব থ্রোনস’–এর কল্যাণে পুরাকথার এই কল্পিত ড্রাগন স্থান করে নিয়েছে মানুষের কল্পনাতেও। প্রাচীন মায়া সভ্যতা ছাড়াও ‘নেটিভ’ আমেরিকানদের ‘চাকো’ জনগোষ্ঠীতে এখনো ড্রাগনের গল্প প্রচলিত।

প্রসূতি মায়েদের ভয়
সূর্যগ্রহণের সময় জন্ম নেওয়া শিশুদের ব্যাপারে দুই ধরনের গপ্প শুনতে পাওয়া যায়। এক, শিশুটি অসুস্থ হবে এবং দুই, শিশুটি চালাক হবে। তবে এ দুটি ধারণার কোনোটার ক্ষেত্রেই বিশ্বাস করার মতো যুক্তি বা তথ্য পাওয়া যায় না।
প্রাচীন অ্যাজটেক সভ্যতায় বিশ্বাস করা হতো, চন্দ্রগ্রহণের সময় চাঁদের এক টুকরো খেয়ে ফেলা হয়। ম্যাক্সিকান সংস্কৃতিতে এটা বিশ্বাসে পরিণত হয়, প্রসূতি মা সূর্যগ্রহণ দেখলে তার অনাগত সন্তানের এক টুকরো খেয়ে নেবে দেবতারা! হিন্দু উপকথায় গ্রহণ নিয়ন্ত্রণ করে রাহু নামে এক অসুরের কর্তিত মুণ্ডু, যিনি সূর্য আর চাঁদ গিলে খেয়েছিলেন।

কাত হয়ে শুতে বারণ
সূর্যগ্রহণে গর্ভবতী মায়েদের শান্তি নেই। সেন্ট লুইসে অবস্থিত মার্সি হাসপাতালের গাইনোকোলজিস্ট শাফিয়া ভুট্টোর মতে, সূর্যগ্রহণের সময় পাকিস্তানে মায়েদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে চিত করে শোয়ানো হতো। নইলে নাকি গর্ভের শিশু বিকলাঙ্গ হয়! বাংলাদেশেও এ ধারণার অস্তিত্ব রয়েছে। তবে গর্ভে শিশুকে রেখে চিত হয়ে শোয়াটা মায়েদের জন্য বেশ কষ্টসাধ্য ব্যাপার।

ধাতব অলংকার পরা, খাবার ও টয়লেটে বারণ
ধাতব অলংকার পরতে বারণ করা আছে ‘অ্যাস্ট্রোসেইজ’ নামে এক জ্যোতির্বিদ্যা সাইটে। অন্যদিকে ম্যাক্সিকান কুসংস্কারে, গ্রহণ চলাকালীন ধাতব অলংকার পরাকে উৎসাহিত করেছে। মেক্সিকোর প্রসূতি মায়েরা পেটের কাছে ধারালো ছুরি রাখতেন যেন গ্রহণের সময় সন্তানকে ঠোঁট কাটা রোগ থেকে বাঁচানো যায়।
হিন্দু ধর্মাবলম্বী দৃকপঞ্চং ওয়েবসাইটে সূর্যগ্রহণের ১২ ঘণ্টা আগে থেকে এবং চন্দ্রগ্রহণের ৯ ঘণ্টা আগে থেকে খাবার গ্রহণ করতে বারণ করা হয়েছে। এ সময় যৌন সংসর্গ বারণ, নিষেধাজ্ঞা রয়েছে মলমূত্র ত্যাগেও। তবে এসব ধারণার সুস্পষ্ট কারণ উল্লেখ নেই এবং নিশ্চিত ভাবেই কোনো বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা নেই।

যে সংস্কারটি মানবেন
সূর্যগ্রহণের সময় সূর্যের দিকে সরাসরি তাকানো বারণ। এই সংস্কার অবশ্যই মানবেন। সত্যি বলতে, যেকোনো সময়েই সূর্যের দিকে সরাসরি তাকাতে নেই। সে হোক গ্রহণের সময়, কিংবা স্বাভাবিক সময়ে। সূর্যগ্রহণ দেখতে কাঁসার পাত্রে পানি থেকে শুরু করে ব্যবহার হয়েছে কাজে লাগে না এমন এক্স-রে প্লেটও। এখন অবশ্য বিশেষ রোদচশমা দিয়ে সূর্যগ্রহণ দেখা যায়। আজকের গ্রহণ সামনে রেখে ভালোই বিকোচ্ছে এসব। দেখে শুনে ভালো মানের এমন চশমা কিনতে পারেন।

সূর্যগ্রহণ নিয়ে কোনো কুসংস্কারে পাত্তা দেওয়ার কোনো মানে নেই। আপনি যদি প্রসূতি মা হয়ে থাকেন, নিজের শরীরের যত্ন নিন। অনাগত সন্তানের জন্য শরীরে যথেষ্ট পুষ্টির ব্যবস্থা করুন। হাজার আলোকবর্ষ দূরের চাঁদ-সূর্য আপনার কোনো ক্ষতি করবে না।

এই সাইবার হামলা একটা সতর্কবার্তা: মাইক্রোসফট
                                  

অনলাইন ডেস্ক : সম্প্রতি বিশ্বজুড়ে হওয়া সাইবার হামলাকে বিভিন্ন দেশের সরকারের জন্য একটি সতর্কবার্তা হিসেবে অভিহিত করেছে বিখ্যাত সফটওয়্যার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান মাইক্রোসফট। সামনে আরও হামলার আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে। আজ সোমবার বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

হ্যাকারদের ছড়িয়ে দেওয়া ক্ষতিকর সফটওয়্যার র‍্যানসমওয়ারে গত শুক্রবার বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের হাজারো স্থানের কম্পিউটার-ব্যবস্থা অচল হয়ে পড়ে। হামলার ব্যাপকতা গতকাল রোববার আরও বাড়ে। অন্তত ১৫০টি দেশ এই সাইবার হামলায় আক্রান্ত হয়েছে। হামলার শিকারের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ লাখের বেশি।

ঝুঁকিপূর্ণ সফটওয়্যারে তথ্য সংরক্ষণের জন্য সরকারগুলোর সমালোচনা করেছে মাইক্রোসফট। ঝুঁকিপূর্ণ সফটওয়্যারে তথ্য সংরক্ষণের কারণেই হ্যাকারেরা এই হামলা চালানোর সুযোগ পেয়েছে বলেও মনে করে মাইক্রোসফট কর্তৃপক্ষ।

সপ্তাহের ছুটি শেষে আজ লোকজন কাজে ফিরবে। এতে কম্পিউটার ব্যবহারের পরিমাণ বাড়বে। এই প্রেক্ষাপটে আরও সাইবার হামলার আশঙ্কা করা হচ্ছে। নতুন হামলা ঠেকাতে অনেক প্রতিষ্ঠান কাজ করছে।

হ্যাকাররা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তির কম্পিউটার অচল করে দিয়ে মুক্তিপণ দাবি করে।

নজিরবিহীন হামলার এই সাইবার হামলার পেছনের মূল হোতাদের ধরতে আন্তর্জাতিক তদন্তকারীরা কাজ শুরু করেছেন।


   Page 1 of 12
     তথ্য -প্রযুক্তি
করোনায় মৃত ব্যক্তির শরীরে কতক্ষণ ভাইরাস থাকতে পারে?
.............................................................................................
বাতাসে ৩ ঘণ্টা পর্যন্ত টেকে করোনাভাইরাস
.............................................................................................
করোনাভাইরাস মোকাবিলায় ২ কোটি ডলার দিচ্ছে ফেসবুক
.............................................................................................
করোনাভাইরাসে বন্ধ হলো স্যামসাং মোবাইল কারখানা
.............................................................................................
করোনার প্রভাব প্রযুক্তি পণ্যে
.............................................................................................
আপনার সম্পর্কে যা বলে স্মার্টফোন
.............................................................................................
ফেসবুক আনল নতুন ফিচার
.............................................................................................
বাংলাদেশের জন্য কর্মী নিয়োগ দেবে ফেসবুক
.............................................................................................
স্বপ্নের কম্পিউটার
.............................................................................................
এল নতুন ইন্টারনেট সেবা ‘ব্রডব্যান্ড ৩৬০ ডিগ্রি’
.............................................................................................
আরও ১৩১৪ পর্নসাইট বন্ধ করা হবে : তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী
.............................................................................................
হোয়াটসঅ্যাপে দৈনিক ২০০ কোটি ঘণ্টার বেশি কল করা হচ্ছে
.............................................................................................
ইউটিউব থেকে সরাসরি ডাউনলোডের সহজ উপায়
.............................................................................................
পিকাবু নিয়ে এলো ‘ঈদ উইক ২০১৭’
.............................................................................................
আজ সূর্যগ্রহণ: যেসব কথায় কান দেবেন না
.............................................................................................
এই সাইবার হামলা একটা সতর্কবার্তা: মাইক্রোসফট
.............................................................................................
নকিয়া ৮, কী থাকছে এতে?
.............................................................................................
স্মার্টফোন বাজারের শীর্ষ পাঁচ
.............................................................................................
মোবাইলে লাইভ স্ট্রিমিং সহজ করল গুগল
.............................................................................................
উইন্ডোজ ফোন কি শেষ?
.............................................................................................
ঢাকায় বসছে বৈশাখী উদ্যোক্তা হাট
.............................................................................................
আসছে ব্ল্যাকবেরি ট্যাবলেট
.............................................................................................
৮৬ শতাংশ কোম্পানি চায় উইন্ডোজ ১০
.............................................................................................
যেভাবে চুরি হতে পারে মোবাইলের পিন
.............................................................................................
নতুন অ্যাপ আনছে ফেসবুক
.............................................................................................
কমদামে স্মার্টফোন আনছে গুগল
.............................................................................................
আসছে গুগল পিক্সেল ২
.............................................................................................
আসছে গ্যালাক্সি এস ৮
.............................................................................................
হুয়াওয়ের নতুন স্মার্টফোন পি১০ ও পি১০ প্লাস
.............................................................................................
সেরা স্মার্টফোন স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৭ এজ
.............................................................................................
নোকিয়া ফিরিয়ে আনল ৩৩১০
.............................................................................................
পৃথিবীর মতো সাত গ্রহের সন্ধান
.............................................................................................
গুহায় পাওয়া গেল ৫০ হাজার বছরের পুরোনো অণুজীব
.............................................................................................
প্রথম গিগাবিট স্মার্টফোন আনছে জেডটিই
.............................................................................................
বিশ্ব বেতার দিবস আজ
.............................................................................................
আরও সুরক্ষিত হল হোয়াটসঅ্যাপ, এল টু স্টেপ ভেরিফিকেশন
.............................................................................................
পাইরেসি ঠেকাতে কঠোর হচ্ছে গুগল
.............................................................................................
ফেসবুকে কে আপনাকে আনফ্রেন্ড করল? জানবেন যেভাবে
.............................................................................................
গ্যালাক্সি সি৯ প্রো স্মার্টফোনের প্রি-বুকিং শুরু
.............................................................................................
পাঠানো মেসেজও এডিট করা যাবে
.............................................................................................
ডেনমার্ক থেকে বিশ্বের প্রথম ‘ডিজিটাল রাষ্ট্রদূত’
.............................................................................................
সফটওয়্যার মেলায় বিশেষ যত আয়োজন
.............................................................................................
সূর্যের চেয়েও গোল!
.............................................................................................
ডিজিটাল গভর্নমেন্ট অ্যাওয়ার্ড পেল আইসিটি বিভাগ
.............................................................................................
‘সুপার মুন’-এর দেখা মিলবে আগামীকাল
.............................................................................................
স্মার্টসিটি গড়তে হ্যাকাথন
.............................................................................................
তরুণীর ২০০০ বছর আগের ‍মুখ পুনর্গঠন!
.............................................................................................
স্মার্টফোনের আলো যেভাবে শরীর ও মস্তিষ্কে প্রভাব ফেলে
.............................................................................................
নিয়োগে অর্থ লেনদেন হলে চাকরি থাকবে না: তারানা
.............................................................................................
রাজধানীতে ৬ দিনব্যাপী প্রযুক্তি পণ্যের মেলা
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: মো: হাবিবুর রহমান সিরাজ
আইন উপদেষ্টা : অ্যাড. কাজী নজিব উল্লাহ্ হিরু
সম্পাদক ও প্রকাশক : অ্যাডভোকেট মো: রাসেদ উদ্দিন
সহকারি সম্পাদক : বিশ্বজিৎ পাল
যুগ্ন সম্পাদক : মো: কামরুল হাসান রিপন
নির্বাহী সম্পাদক: মো: সিরাজুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : সাগর আহমেদ শাহীন

সম্পাদক কর্তৃক বি এস প্রিন্টিং প্রেস ৫২ / ২ টয়েনবি সার্কুলার রোড, সূত্রাপুর ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ৯৯ মতিঝিল , করিম চেম্বার ৭ম তলা , রুম নং-৭০২ , ঢাকা থেকে প্রকাশিত ।
মোবাইল: ০১৭২৬-৮৯৬২৮৯, ০১৬৮৪-২৯৪০৮০ Web: www.dailybishowmanchitra.com
Email: news@dailybishowmanchitra.com, rashedcprs@yahoo.com
    2015 @ All Right Reserved By dailybishowmanchitra.com

Developed By: Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD