|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   রাজধানী -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
সিনিয়র সাংবাদিক রাশীদ উন নবী বাবু আর নেই

সিনিয়র সাংবাদিক, জাতীয় প্রেস ক্লাব ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সিনিয়র সদস্য রাশীদ উন নবী বাবু আর নেই (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। আজ বুধবার রাত ৮ টা ৩৫ মিনিটে রাজধানীর পান্থপথের বিআরবি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

৪৫ বছরের সাংবাদিকতা জীবনে তিনি দৈনিক আমার দেশ, দৈনিক বাংলা, বাংলার বাণী, দেশ বাংলা, আজকের কাগজ, ইত্তেফাক, সমকাল, যুগান্তর, এনটিভি, চ্যানেল ওয়ান, ইনকিলাব ও সাপ্তাহিক পূর্নিমায় গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে ছিলেন।

তিনি দৈনিক সকালের খবরের সম্পাদক ছিলেন। সর্বশেষ তিনি প্রকাশিতব্য দৈনিক আমার দিনে সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন।

সিনিয়র সাংবাদিক রাশীদ উন নবী বাবু আর নেই
                                  

সিনিয়র সাংবাদিক, জাতীয় প্রেস ক্লাব ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সিনিয়র সদস্য রাশীদ উন নবী বাবু আর নেই (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। আজ বুধবার রাত ৮ টা ৩৫ মিনিটে রাজধানীর পান্থপথের বিআরবি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

৪৫ বছরের সাংবাদিকতা জীবনে তিনি দৈনিক আমার দেশ, দৈনিক বাংলা, বাংলার বাণী, দেশ বাংলা, আজকের কাগজ, ইত্তেফাক, সমকাল, যুগান্তর, এনটিভি, চ্যানেল ওয়ান, ইনকিলাব ও সাপ্তাহিক পূর্নিমায় গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে ছিলেন।

তিনি দৈনিক সকালের খবরের সম্পাদক ছিলেন। সর্বশেষ তিনি প্রকাশিতব্য দৈনিক আমার দিনে সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন।

বোবা কান্নায় রাজধানী ঢাকা ছাড়ছে মানুষ
                                  
 

রাজধানীর চিরসাথী ট্রাফিক জ্যাম নেই। বায়ুদূষণ কমে সবুজ বেড়েছে। তবুও প্রতিদিন বোবা কান্নায় শহর ছাড়ছে মানুষ। অন্তঃহীন, অনিশ্চিত ভবিষ্যতের পরও গ্রামে ফিরছে সবাই। শহরের বাড়িগুলোতে টু-লেটের সংখ্যা বাড়ছে। কারো কারো চাকরি চলে গেছে। ক্ষুদ্র-মাঝারি ব্যবসাও বন্ধ। ঝুঁকির মুখে বেসরকারি খাতের চাকরি আছে তো বেতন নেই। আবার কারো বেতন কমে গেছে। এসএমই সেক্টরে ধস নেমেছে।

এক হিসাবে দেখা যায়, এরই মধ্যে ৫০ হাজারের বেশি লোক ফিরে গেছে গ্রামে। উঠতি মধ্যবিত্তের একটা অংশ কম ভাড়ার বাসায় চলে যাচ্ছেন। কেউ কেউ পরিবার গ্রামে পাঠিয়ে দিয়ে নিজে কম ভাড়ার মেসে উঠেছেন। পরিসংখ্যান বলছে, গত ২০ বছরে রাজধানীতে বাড়িভাড়া অনেকগুণ বেড়েছে। এরই মধ্যে খাবার খরচ, শিক্ষা, যাতায়াত, স্বাস্থ্য, বিদ্যুৎ বিল, গ্রামে থাকা মা-বাবার দেখভাল আর মোবাইল বিল খরচ করে পকেটে আর কিছুই থাকে না। প্রতি মাসের শেষ কটা দিন ধারদেনা করে চলে, কোনো সঞ্চয় নেই, তাই এই বাড়িভাড়ার চাপেই শহর ছাড়ছে মানুষ। পরিস্থিতির উন্নতি না হলে তারা ঋণগ্রস্ত হয়ে নিম্নবিত্তের কাতারে নেমে যাবেন বলেও আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

পরিসংখ্যান মতে, দেশে ৯০ লাখ মানুষ আনুষ্ঠানিক খাতে চাকরি করেন। এর মধ্যে ১৫ লাখ সরকারি খাতে। বাকি ৭৫ লাখ মানুষ বেসরকারি খাতে। অনানুষ্ঠানিক খাতে কাজ করেন ছয় কোটি ৮ লাখ মানুষ।

অপর দিকে বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (বিআইডিএস) সাম্প্রতিক জরিপ বলছে, করোনায় দেশে নতুন করে এক কোটি ৬৪ লাখ মানুষ গরিব হয়েছেন। দারিদ্র্যসীমার নিচে নেমে যুক্ত হওয়া নতুন এ সংখ্যার ফলে এখন দেশে গরিব মানুষ পাঁচ কোটির বেশি। বিরাজমান পরিস্থিতিতে সংস্থাটির গবেষণা পরিচালকের আশঙ্কা, অর্থনীতির যে স্থবির অবস্থা, তা যদি আগামী সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলতে থাকে, তাহলে ৩০ শতাংশ মধ্যবিত্তের একটা বড় অংশ দারিদ্র্যসীমার নিচে নেমে যাবে।

গবেষণা সংস্থাটি বলছে, বর্তমান পরিস্থিতিতে মধ্যবিত্তের ওপর মূল চাপ কতটা পড়বে কিংবা তারা কতটা ক্ষতিগ্রস্ত হবে তা নির্ভর করবে অর্থনীতি কতটা ঘুরে দাঁড়ায় তার ওপর। চলতি জুলাই থেকে সেপ্টেম্বরের মধ্যে তা বুঝা যাবে। বিআইডিএস গবেষকদের মতে, বাজেটে একটা প্রাক্কলন করা হয়েছে চলতি বছরের দ্বিতীয় কোয়ার্টার থেকে তৃতীয় কোয়ার্টারের মধ্যে অর্থনীতি ৫০ শতাংশ ঘুরে দাঁড়াবে। যদি তা হয় তাহলে পরিস্থিতি কিছুটা সামাল দেয়া যাবে। আর যদি ঘুরে না দাঁড়ায় তাহলে মধ্যবিত্তের জন্য আরো কঠিন পরিস্থিতি আসবে। জুন পর্যন্ত তথ্য তুলে ধরে বিআইডিএসের জরিপে বলা হচ্ছে, বেসরকারি খাতের চাকরির আয় এরই মধ্যে ঝুঁকির মুখে পড়েছে। একটি অংশের চাকরি আছে, কিন্তু বেতন নেই। আবার কারো বেতন কমে গেছে। এসএমই সেক্টরে ধস নেমেছে। এসব কারণে অসচ্ছল ঝুঁকিপূর্ণ পরিবারের অধিকাংশই দারিদ্র্যসীমার নিচে নেমে গেছে। যার সংখ্যা হবে দেড় কোটি থেকে আড়াই কোটির মতো।

এতে আরো বলা হয়, করোনায় এক কোটি ৬৪ লাখ মানুষ নতুন করে গরিব হয়েছে, যারা দারিদ্র্যসীমার নিচে নেমে গেছে। তাই এখন দেশে গরিব মানুষের সংখ্যা পাঁচ কোটির বেশি। এ অবস্থায় চলতি বছরের তৃতীয় কোয়ার্টারের ওপরই নির্ভর করবে আমাদের অর্থনীতি কতটা ঘুরে দাঁড়াবে আর মধ্যবিত্ত কতটা ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

সংস্থাটি বলছে, দারিদ্র্যসীমার নিচে নেমে যাওয়া দেড় থেকে আড়াই কোটির মতো নতুন দরিদ্রের অধিকাংশই অসচ্ছল ঝুঁকিপূর্ণ পরিবার। কারণ এ সময় তাদের মজুরি শ্রমের কোনো সুযোগ ছিল না। ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদেরও কোনো ব্যবসা ছিল না। তবে মধ্যবিত্তের হিসাবটা একটু জটিল। তাদের মূল আশ্রয়স্থল হলো তারা মাসিক বেতনের ভিত্তিতে চাকরি করে। ব্যাংকের সাথে মধ্যবিত্তদের একটা লেনদেন আছে। তাদের মোটামুটি একটা সঞ্চয় আছে। কিন্তু অর্থনীতির যে স্থবির অবস্থা, এ রকম যদি সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলতে থাকে, তাহলে ৩০ শতাংশ মধ্যবিত্তের একটা বড় অংশ দারিদ্র্যসীমার নিচে নেমে যাবে।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) সর্বশেষ খানা জরিপ অনুযায়ী করোনার আগে দেশের মোট জনগোষ্ঠীর ২০.৫ ভাগ দারিদ্র্যসীমার নিচে ছিল। আর চরম দরিদ্র ছিল ১০ শতাংশ। অপর দিকে বিশ্বব্যাংকের হিসাবে, এক জনের দৈনিক আয় এক ডলার ৯০ সেন্ট হলে ওই ব্যক্তিকে দরিদ্র ধরা হয় না। এর নিচে হলে দরিদ্র। মধ্যবিত্তের আয় সম্পর্কিত বিশ্বব্যাংকের হিসাবটি একটু বেশি। তাদের মতে, প্রতিদিন যাদের আয় ১০ থেকে ৫০ ডলার তারা মধ্যবিত্ত।

অন্য দিকে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি) বলছে, এক ব্যক্তির ক্রয়ক্ষমতা (পিপিপি) যদি প্রতিদিন দুই ডলার থেকে ২০ ডলারের মধ্যে হয় তাহলে তাকে মধ্যবিত্ত বলা যায়। এই হিসাবে বাংলাদেশে মধ্যবিত্ত হলো তিন কোটি ৭ লাখ। তবে বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে দুই থেকে চার ডলার প্রতিদিনের আয় হলেই মধ্যবিত্ত। সেই হিসাবে যার মাসিক আয় ৪০ হাজার থেকে ৮০ হাজার টাকা সেই মধ্যবিত্ত। এটা দেশের জনগোষ্ঠীর ৩০ ভাগ। ১৬ কোটি মানুষের হিসাবে সংখ্যাটি দাঁড়ায় চার কোটি ৮০ লাখ।

ব্র্যাকের ঊর্ধ্বতন পরিচালক কে এ এম মোরশেদ বলছেন, দিনে ১.৯ ডলারের দ্বিগুণ যাদের আয় তাদের আমরা বলি নিম্ন মধ্যবিত্ত। এরাই এখন সবচেয়ে বেশি সঙ্কটের মুখে আছেন। তারাই হয়তো দরিদ্রের কাতারে নেমে গেছেন। কিন্তু যারা মধ্যবিত্ত, তারা এখনো টিকে আছেন। তাদের সংখ্যা হয়তো ঠিকই থাকবে। হয়তো ব্যক্তির পরিবর্তন হবে। কারণ নতুন পরিস্থিতিতে পেশার পরিবর্তন হবে। নতুন ধরনের ব্যবসা আসবে, কাজ আসবে। কেউ ভালো অবস্থায় যাবেন। আবার কেউ খারাপ অবস্থায় পড়বেন।

কিন্তু বিআইডিএসের জরিপ বলছে, করোনায় ফর্মাল সেক্টরে কাজ করা ১৩ শতাংশ মানুষ চাকরি হারিয়েছেন। যাদের আয় ১১ হাজার টাকার কম তাদের ৫৬.৮৯ শতাংশ পরিবারের আয় বন্ধ হয়ে গেছে। ৩২.১২ শতাংশের আয় কমে গেছে। যাদের আয় ১৫ হাজার টাকার মধ্যে তাদের ২৩.২ শতাংশের আয় পুরোপুরি বন্ধ হয়ে গেছে। ৪৭.২৬ শতাংশের আয় কমে গেছে। আর যাদের আয় ৩০ হাজার টাকার বেশি তাদের ৩৯.৪ শতাংশের আয় কমেছে এবং ৬.৪৬ শতাংশের আয় বন্ধ হয়ে গেছে।

১৩ ঘণ্টা পর জীবিত উদ্ধার ডুবন্ত লঞ্চ থেকে
                                  

অবিশ্বাস্য হলেও এটাই সত্য। কেউ বিশ্বাসও করতে চাইবে না যে প্রায় ৫০ ফুট পানির নিচে ডুবন্ত লঞ্চ থেকে দীর্ঘ ১৩ ঘণ্টা পর আনুমানিক ৪০ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। এই ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার বুড়ীগঙ্গায় দুর্ঘটনায় ডুবে যাওয়া মর্নিং বার্ড লঞ্চে। ঢাকা নদী বন্দরের যুগ্ন পরিচালক এ কে এম আরিফ উদ্দিন বলেন, সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ডুবুরিরা যখন টিউবের মাধ্যমে লঞ্চটি ওপরে তোলার চেষ্টা করছিলেন এবং লঞ্চটির একাংশ ওপরে উঠে আসে; ঠিক তখনই ওই ব্যক্তি নিজ চেষ্টায় লঞ্চের ভিতর থেকে বেরিয়ে আসেন। বিষয়টি নিয়ে সবার মধ্যে কৌতুহল তৈরি হয়।

ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা জানিয়েছেন, উদ্ধার ব্যক্তির নাম সুমন ব্যাপারী। তিনি মুন্সিগঞ্জের টঙ্গীবাড়ীর আব্দুল্লাহপুর গ্রামের সজল বেপারীর ছেলে। সুমন পেশায় ফল ব্যাবসায়ী। তাকে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (মিডফোর্ড) হাসপাতালের ক্যাজুয়েলিটি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। ডুবুরিরা তাৎক্ষণিকভাবে তাকে লাইফ জ্যাকেটে ঢেকে এবং শরীর মেসেজ করে তার শরীর গরম করার চেষ্টা করেন। এরপর ওই ব্যক্তি চোখ মেলে তাকান। চোখের ইশারায় কথা বলার চেষ্টা করেন।

নৌবাহিনী, কোস্টগার্ড ও নৌ পুলিশের কর্মকর্তারা জানান, তারা যখন উদ্ধার হওয়া ব্যক্তিটিকে বিভিন্ন বিষয় জানতে চাইলে তিনি চোখের ইশারায় কথার জবাব দেয়ার চেষ্টা করছিলেন। তবে দীর্ঘ সময় পানির নিচে আটকে থাকায় তার শরীরের তাপমাত্রা এবং অক্সিজেন লেভেল নিচে নেমে গেছে।

পানির নিচে তলিয়ে গেলেও এ ব্যক্তি কীভাবে বেঁচে গেলেন তা নিয়ে জল্পনা-কল্পনা চলছে। ধারণা করা হচ্ছে, তিনি যেখানে আটকা পড়িছিলেন সেখানে হয়তো কিছুটা বাতাস ছিল। যার মাধ্যমে সুমন শ্বাস নিতে পেরেছিলেন। যখন টিউবের মাধ্যমে বিশেষ প্রক্রিয়ায় লঞ্চটি তোলার চেষ্টা করা হচ্ছিল তখন লঞ্চটি সামান্য ভেসে ওঠার পর ওই ব্যক্তি নিজের প্রচেষ্টায় বেরিয়ে আসেন এবং উদ্ধার কর্মীরা তাকে দেখতে পেয়ে উদ্ধার করে নৌকায় তোলেন।

ঢাকা ছাড়ছেন মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্তরা
                                  

স্ত্রী সালমা ও তিন সন্তান নিয়ে ১৮ বছর ধরে ঢাকার মিরপুরে বসবাস করতেন ময়মনসিংহের নান্দাইলের বাসিন্দা আব্দুল আউয়াল (ছদ্মনাম)। রাজধানীর গুলশানে ছিল তার ব্রেড ও বিস্কুট তৈরির (বেকারি) কারখানা। মিরপুরের বাসা আর গুলশানের কারখানা দুটোই ছিল ভাড়া নেওয়া। সর্বশেষ কারখানার ভাড়া ছিল মাসে ৯০ হাজার টাকা আর বাড়ির ভাড়া ছিল ১৫ হাজার টাকা। করোনার কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যাওয়ায় স্ত্রী সালমা ও সন্তানদের তিন মাস আগেই গ্রামের বাড়ি পাঠিয়ে দেন ৫৫ বছর বয়সি আউয়াল। অন্যদিকে করোনার কারণে পর্যুদস্ত অর্থনৈতিক ব্যবস্থায় নিজের ব্যবসা টিকিয়ে রাখতে সর্বাত্মকভাবে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু কোনোমতেই ব্যবসা ঠেকাতে পারলেন না। আবার ব্যবসা না টিকলে কি হবে, মাস শেষে তাকে ঠিকই গুনতে হয় বাড়ি ভাড়ার ১৫ হাজার টাকা আর কারখানার ভাড়া ৯০ হাজার টাকা। এ তো গেলো শুধু ঘর ভাড়ার খরচ। তার বাইরে আছে কারখানার কারিগরদের বেতন, সংসারের মাসিক খরচ। ব্যবসা টেকাতে না পেরে করোনার প্রাদুর্ভাব শুরুর এক মাস পরই কারখানার কারিগরদের বিদায় করে দিতে বাধ্য হন তিনি। আশায় ছিলেন পরিস্থিতির উন্নতি হলে আবার পুরোদমে ব্যবসা শুরু করবেন। কিন্তু আয়-উপার্জন শূন্যের কোঠায় নেমে যাওয়ায় কারখানা ধরে রাখা তো দূরের কথা, মিরপুরের বাসাটাও ছেড়ে দিতে বাধ্য হন আউয়াল। সর্বশেষ তিনিও চরম অনিশ্চয়তা নিয়ে চলতি মাসের শুরুতে ফিরে গেছেন নিজ ভিটায়। আর কিছু না হোক, অন্তত বাসা ভাড়াটা তো আর দিতে হবে না, এই ভরসায়।

আউয়াল সাহেবের মতো এমন অনেক মানুষ, যারা কি না বহুদিন ধরে জীবনের প্রয়োজনে, জীবিকার প্রয়োজনে ঢাকায় বসবাস করছিলেন পরিবার-পরিজন নিয়ে, তারা এরই মধ্যে ঢাকা ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা শহরের অনেক বাড়িতেই বেড়ে গেছে ঝুলে থাকা টু-লেট-এর বিজ্ঞাপন। অনেক বাড়িতেই ভাড়াটিয়া নেই বলে একাধিক ফ্ল্যাট খালি আছে।

করোনার কারণে নিম্নআয়ের মানুষ যতটা বিপদে পড়েছে, তার চেয়ে বেশি বিপদে ও বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছে নিম্ন-মধ্যবিত্ত বা মধ্যবিত্ত শ্রেণির মানুষ। সরকারের করোনাকালীন নানা সহায়তা কর্মসূচির তালিকায় নিম্নআয়ের মানুষ নাম ওঠাতে পারলেও নিম্ন-মধ্যবিত্ত বা মধ্যবিত্ত শ্রেণি কোনো তালিকায় নেই। তারা না পারছে নিজেদের সামাজিক অবস্থান ধরে রাখতে, না পারছে কারো কাছে হাত পাততে। তাদের অনেকেরই এখন ভেতরে ভেতরে গুমরে মরার দশা।

পরিসংখ্যান মতে, দেড় হাজার বর্গকিলোমিটারের এ নগরীতে প্রায় ২ কোটি মানুষ বসবাস করে যাদের প্রায় ৮০ শতাংশই ভাড়া বাসার বাসিন্দা। কিন্তু গত মার্চে দেশে করোনা ভাইরাস হানা দেওয়ার পর খেয়ে-পরে বেঁচে থাকা নিম্ন-মধ্যবিত্ত ও মধ্যবিত্ত শ্রেণির স্বপ্ন ভাঙতে শুরু করেছে। সম্প্রতি ব্র্যাকের এক প্রতিবেদনে দেখা গেছে, ৩৬ শতাংশ মানুষ চাকরি হারিয়েছেন। তিন শতাংশের চাকরি থাকলেও বেতন পান না। দৈনিক মজুরি ভিত্তিতে যারা কাজ করেন তাদের ৬২ শতাংশই কাজের সুযোগ হারিয়েছে। সে সঙ্গে ঢাকা জেলার মানুষের আয় কমেছে ৬০ শতাংশ।

রাজধানীর কাঁঠালবাগানের ২১০ নম্বর বাড়ির দ্বিতীয়তলায় সপরিবারে ভাড়া থাকতেন অ্যাডভোকেট আব্দুল জলিল। দুই সন্তানের মধ্যে বড়টি তৃতীয় শ্রেণিতে ও ছোটটি প্লে-তে পড়াশোনা করছে। করোনার মহামারিতে নিম্ন-আদালতের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে গেলে তার রোজগার থেমে যায়। মাসের ১৫ হাজার টাকা বাড়ি ভাড়া ও সংসারের খরচ চালাতে গিয়ে তিনি অন্ধকারে পড়ে যান। টানা তিন মাস রোজগারহীন অবস্থায় সংসার চালানোর পর ২০ জুন তিনি ঢাকা ছেড়ে বাড়িতে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। বাড়ির মালিককে তিনি তার ভাড়া প্রদানের অপারগতা জানিয়ে পরদিনই চলে যান কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে নিজ বাড়িতে। অনলাইনে স্কুলের পড়াশোনা হচ্ছে বলে তার কোনো সমস্যা নেই। গ্রামের বাড়িতে থেকেই পড়াশোনা চালাবে। পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আবার ঢাকায় আসবেন সপরিবারে।

করোনার এই পরিস্থিতিতে ভাড়াটিয়াদের অধিকার নিয়ে কাজ করছে এমন সংগঠন নতুনধারা বাংলাদেশ এনডিবির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান শান্তা ফারজানা বলেন, করোনা ক্রান্তিলগ্নে বাংলাদেশের মানুষ একদিকে যেমন নিরন্ন অবস্থায় দিন কাটাচ্ছে অন্যদিকে বাড়ি ভাড়া সংকটে ভুক্তভোগী। এমতাবস্থায় নতুনধারা বাংলাদেশ এনডিবির চেয়ারম্যান মোমিন মেহেদীর নেতৃত্বে নেতৃবৃন্দ অনশন করেছিলেন। তাতেও সরকারের টনক না নড়ায়, রোড মার্চ করে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে গিয়ে স্মারকলিপি দিয়েছিলেন। নতুনধারার চারটি দাবির অন্যতম দাবি ছিল গ্যাস-বিদ্যুত্-পানির বিল মওকুফ করে বাড়িওয়ালাদের সহযোগিতার মাধ্যমে ভাড়াটিয়াদের সমস্যা সমাধান করা। প্রধানমন্ত্রী চাইলেই সরকারি ভর্তুকির মধ্যদিয়ে এই সংকট থেকে উত্তরণের জন্য ভুক্তভোগী ভাড়াটিয়া বিশেষ করে মধ্যবিত্ত আর নিম্নবিত্তদের সহযোগিতা করতে পারেন।

ব্র্যাকের গবেষণা রিপোর্ট অনুযায়ী চাকরি হারানো ৩৬ শতাংশ ব্যক্তির বেশিরভাগ অংশই ঢাকার ভাড়া বাসা ছেড়ে দিয়ে গ্রামের বাড়িতে চলে যেতে শুরু করেছেন। চলতি জুন মাসে গোটা রাজধানী জুড়ে ভাড়াটিয়াদের বাড়ি ছেড়ে দেওয়ার দৃশ্য চোখে পড়ছে। পিকআপ, ভ্যানগাড়ি বা ট্রাকে করে মালামাল ভরে গ্রামের বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দিচ্ছেন এসব পরিবার। আবার অনেকেই বেশি টাকায় ভাড়া নেওয়া বড় ফ্ল্যাট ছেড়ে দিয়ে ছোট ফ্ল্যাট বা সাবলেটে ভাড়ায় উঠছেন। আবার কেউ কেউ পরিবারের সদস্যদের মালামালসহ গ্রামের বাড়িতে পাঠিয়ে দিয়ে নিজে মেসে উঠছেন খরচ কমানোর জন্য।

ব্যাচেলর ভাড়াটিয়াদের সংগঠন বাংলাদেশ মেস সংঘের মহাসচিব আয়াতুল্লাহ আখতার বলেন, বর্তমান শোচনীয় পরিস্থিতিটা রাষ্ট্র থেকে শুরু করে ব্যক্তিকেন্দ্রিক সবাই ভুক্তভোগী। একে তো ব্যাচেলরদের অর্থ সংকট সবসময় থাকে। করোনার এই পরিস্থিতিতে ব্যাচেলরদের দুর্বিষহ দিন কাটাতে হচ্ছে। এক্ষেত্রে বাড়ির মালিক ও ভাড়াটিয়া উভয়কে বিবেকবোধ জাগ্রত করতে হবে। উভয়পক্ষকে সহনশীল হতে হবে। বাড়ির মালিকরা মানবিক দিক বিবেচনা করে ভাড়া কম নিলে ব্যাচেলর, নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্তরা ঢাকায় থাকতে পারবেন।

ঢাকায় লকডাউনে আগ্রহী নয় সরকার
                                  
 

সারা দেশে করোনাভাইরাস যতটুকু বিস্তার করেছে তার বেশির ভাগই রাজধানী ঢাকায়। তারপরও রাজধানী ঢাকায় লকডাউনে আগ্রহ নেই সরকারের। চলতি সপ্তাহে দুই দফা দেশের ১৫টি জেলার ৩৮টি এলাকাকে লকডাউন ঘোষণা করা হলেও করোনা সংক্রমণের কেন্দ্রস্থল- রাজধানী ঢাকাকে এই সাধারণ ছুটির আওতাভুক্ত করা হয়নি।

অন্যদিকে করোনার সংক্রমণ হার বিবেচেনায় মৌলভীবাজারের কুলাউড়া ও শ্রীমঙ্গল উপজেলার চারটি পৌরসভা ও ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকাকে ২১ দিনের জন্য লকডাউন করা হয়েছে। অথচ গতকাল পর্যন্ত এ জেলায় আক্রান্ত হিসাবে শনাক্তকৃত ২৮৪ জন করোনা রোগীর মধ্যে ১২০ জন এরই মধ্যে সুস্থ হয়েছেন। বাকিদের মধ্যে বেশির ভাগ সুস্থতার পথে। নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যাও কমছে। তারপরও এ জেলার কিছু এলাকাকে লকডাউন করা হয়েছে।

রাজধানীতে লকডাউনের বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের প্রজ্ঞাপন পাওয়ার সাথে সাথেই লকডাউন বাস্তবায়ন নিয়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন প্রস্তুতিমূলক কার্যক্রম শুরু করে। এর পরের দিনই আমরা কেন্দ্রীয় বাস্তবায়ন কমিটির সমন্বয় সভা করেছি। আমরা আমাদের প্রস্তুতি সম্পন্ন করে রেখেছি। এখন আমরা এলাকাভিত্তিক সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় রয়েছি। 

বিশ্লেষকদের মতে, অর্থ বছরের শেষ মাসে বিভিন্ন বরাদ্দের অর্থব্যয়, ব্যাংকগুলোর আর্থিক বছর ক্লোজিং, বাজেট অধিবেশনে সংসদ চালু রাখা উপরন্তু কলকারখানা মালিকদের চাপের কারণে রাজধানীতে লকডাউন দিতে আগ্রহী নয় সরকার। তবে আর্থিক কর্মকা-কে গুরুত্ব দিয়ে রাজধানীতে লকডাউন দিতে দেরী করলে সংক্রমণ আরো বেড়ে যাবে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সূত্রে জানা গেছে, চলমান পরিস্থিতিতে করোনায় দেশে আরো কত মানুষ আক্রান্ত ও মৃত্যুবরণ করতে পারেন? তা নিয়ে ন্যূনতম টেস্টের ওপর ভিত্তি করেই নতুন করে একটি পর্যালোচনা করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। জনস্বাস্থ্যবিদদের সমন্বয়ে গঠিত কমিটির ওই পর্যালোচনায় দেখা যায়, সংক্রমণের চলমান ঊর্ধ্বমুখী ধারা আগামী এক মাসের বেশি সময় পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। এই সময়ে আরো এক লাখ ২৫ হাজার মানুষ আক্রান্ত হতে পারেন। আগস্ট মাসের প্রথম সপ্তাহে গিয়ে সংক্রমণের মাত্রা নিম্নমুখী হতে শুরু করবে। ঢাকাকে জুলাই মাসে প্রথম সপ্তাহ লকডাউন দিলে পুরো মাসটি কাভার করবে। এরই মধ্যে করোনার পরিস্থিতি উন্নতির দিকে যাবে বলে মনে করছে তারা। করোনা মোকাবেলায় গঠিত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির সদস্য এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ও ভাইরোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা: নজরুল ইসলাম বলেন, লকডাউন দিতে আমাদের যত দেরি হবে, সংক্রমণ ততই বাড়বে। এমনিতেই সংক্রমণ নতুন মাত্রায় উঠেছে। সংক্রমণ আরো বাড়লে কন্ট্রোল করা খুব কঠিন হয়ে যাবে। এখনই যা করার আমাদের করতে হবে। স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের উচিত হবে অতি দ্রুত এ জোনিং ম্যাপ সিটি করপোরেশনকে দেয়া। রেড জোনে আইসোলেশন ও প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত না করলে শুধু লকডাউনে ইতিবাচক ফল আসবে না। পরীক্ষা করে শনাক্ত ও যারা সংস্পর্শে গেছেন, তাদের আলাদা করতে হবে।

 

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, করোনা মোকাবেলায় গঠিত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির কোনো মতামত আমলে নিচ্ছে না স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বা আমলারা। তারা যখন যা খুশি করে যাচ্ছেন; সাধারণ ছুটি দিচ্ছেন, লকডাউন ঘোষণা করছেন; লকডাউন কার্যকর থাকা এলাকায় আবারো সাধারণ ছুটি ঘোষণা করছেন। এই ধরনের হঠকারী সিদ্ধান্তে করোনাভাইরাস রোধ করা কঠিন হবে।

করোনা অধিক সংক্রমিত দেশের ১০ জেলায় ‘রেড জোন’ (লাল অঞ্চল) ঘোষণা করে ২১ জুন রোববার মধ্যরাতে হঠাৎ প্রজ্ঞাপন জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। পরের দিন আরো ৫৫টি জেলার ১১ এলাকা রেড জোন ঘোষণা করে বিভিন্ন মেয়াদে সাধারণ ছুটি ঘোষণা হয়। এর আগের সপ্তাহে জোনভিত্তিক এলাকার নাম ঘোষণা করেও পরে তা ফিরিয়ে নেয় স্বাস্থ্য অধিদফতর। আবার লাল, সবুজ, হলুদ এলাকায় করণীয় জানানোর দুই সপ্তাহ পর ১৫ জেলার ৩৮ এলাকা রেডজোন হিসেবে চিহ্নিত করে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হলো।

বিভিন্ন দেশ কঠোর লকডাউন কার্যকর করে করোনা ঠেকালেও বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে গত ২৬ মার্চ থেকে কয়েক দফা সাধারণ ছুটির ঘোষণা করা হয়েছে। ছুটি কার্যকরে প্রায় সারা দেশেই দেখা যায় ঢিলেঢালা ভাব। সাধারণ মানুষের মধ্যেও ঘরে থাকা, সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা বা স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণের প্রবণতা খুব বেশি দেখা যায়নি। প্রশাসনও কঠোর হতে পারেনি।

এই অবস্থায় গত ২৬ এপ্রিল থেকে পোশাক কারখানা খুলে দেয়া হয়। এরপর পরিস্থিতি আরো অবনতি হতে থাকে। সর্বশেষ অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে ৩১ মে থেকে রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশের সব সরকারি- বেসরকারি অফিস-আদালত, বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান, দোকানপাট ও কলকারখানা খুলে দেয়া হয়। এতে পরিস্থিতির দ্রুত অবনতি হলেও করোনা রোধে কঠোর কোনো পদক্ষেপ নেই। 

গত ১১ জুন রাত থেকে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার সদর ইউনিয়নটিকে রেড জোন ঘোষণা করে ১৪-২১ দিনের জন্য লকডাউন করে স্থানীয় প্রশাসন। লকডাউনের ১১ দিনের মাথায় এই ইউনিয়নে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। প্রজ্ঞাপনে ২১ জুন থেকে ২ জুলাই পর্যন্ত এই এলাকায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়।

ডিএনসিসির মেয়রের দায়িত্ব নিচ্ছেন আতিকুল আজ
                                  

ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে জয় লাভের পর বহু চ্যালেঞ্জ কাঁধে নিয়ে দায়িত্ব নিচ্ছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) নবনির্বচিত মেয়র আতিকুল ইসলাম ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। আজ বুধবার ডিএনসিসির গুলশানের নগর ভবনে ভারপ্রাপ্ত মেয়র মো. জামাল মোস্তফার কাছ থেকে দায়িত্ব গ্রহণ করবেন আতিকুল।

অন্যদিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসের আগামী ১৭ মে ডিএসসিসির প্রথম নির্বাচিত বিদায়ী মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকনের কাছ থেকে দায়িত্ব গ্রহণ করার কথা রয়েছে। এ বিষয়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা উত্তম কুমার বলেন, বর্তমান বোর্ডের মেয়াদকাল শেষ হচ্ছে ১৬ মে। সে অনুযায়ী আগামী ১৭ মে ডিএসসিসির নবনির্বাচিত মেয়র দায়িত্ব গ্রহণ করবেন বলে আলোচনা হচ্ছে। তবে এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে সময় নির্ধারণ হয়নি।

২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল দুই সিটি করপোরেশনের প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ডিএনসিসিতে বিজয়ী হন আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আনিসুল হক ও ডিএসসিসিতে বিজয়ী হন একই দলের প্রার্থী মোহাম্মদ সাঈদ খোকন। মেয়র খোকন দায়িত্ব গ্রহণ করেন ৬ মে এবং বোর্ডসভা করেন ১৬ মে। আর আনিসুল হক দায়িত্ব গ্রহণ করেন ৭ মে এবং প্রথম বোর্ডসভা করেন ১৩ মে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নতুন দুই মেয়রের সামনে রয়েছে বহু চ্যালেঞ্জ। বিশেষ করে দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে ধস নেমেছে রাজস্ব আদায়ে। গৃহকর আর বাজার সালামি থেকে কাঙ্ক্ষিত রাজস্ব পাচ্ছে না সংস্থাটি। বাজেটের ৩০ শতাংশ আদায় হচ্ছে না। এছাড়া পুরান ঢাকাসহ ডিএসসিসির বিভিন্ন এলাকায় এখনো মশার যন্ত্রণায় মানুষ বসবাস করতে কষ্ট হয়। এই করোনার সময়ও মশক নিধনকে চ্যালেঞ্জ হিসেবেই দেখছেন এলাকাবাসী। একই চ্যালেঞ্জ রয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নতুন মেয়রের ক্ষেত্রেও। এসব বিষয়ে স্থপতি ইকবাল হাবিব বলেন, ‘নবনির্বাচিত মেয়রদের কাছে প্রত্যাশা থাকবে তারা যেন নিজ নিজ দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করেন। করোনার এ সময়ে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার বিষয়ে নবনির্বাচিত মেয়রদের বিশেষ দৃষ্টি দিতে হবে।’

স্বরূপে ফিরতে শুরু করছে চিরচেনা রাজধানী
                                  

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ব্যাপকতা বাড়ার কারণে সাধারণ ছুটির ৩৯তম দিনে এসে স্বরূপে ফিরতে শুরু করছে চিরচেনা রাজধানী। শুধুমাত্র গণপরিবহণ ছাড়া সব ধরনের গাড়ি সড়কে চলাচল করছে।

মঙ্গলবার রাজধানীর অনেক সড়কেই যানজট দেখা গেছে। অপরদিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-সিলেট, ঢাকা-আরিচা, ঢাকা-ময়মনসিংহ-টাঙ্গাইল মহাসড়ক থেকে ঢাকার প্রবেশপথে যানজট লক্ষ্য করা গেছে।

সড়কগুলোতে ট্রাক ও লরি ছাড়াও লেগুনা, সিএনজিচালিত অটোরিকশা, ব্যক্তিগত গাড়ির আধিক্য দেখা গেছে। বলা যায়, দূরপালস্নার বাস ছাড়া সব ধরনের যানবাহনই সড়কে চলাচল করছে।

মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর বনানী, বিজয় সরণি, যাত্রাবাড়ী, আব্দুলস্নাহপুর ও গাবতলী এলাকায় সিগন্যাল অপেক্ষা করতে দেখা গেছে গাড়িগুলোকে। ব্যক্তিগত গাড়ি ও সিএনজি অটোরিকশাসহ বেড়েছে রাজধানীর সড়কে। বিভিন্ন এলাকায় মানুষের ভিড়ও দেখা গেছে। অনেককেই আবার হেঁটে কর্মস্থলে যেতে দেখা গেছে।

সোমবার (৪ মে) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শপিংমল খোলা রাখার ঘোষণা দেওয়ার পরের দিনই রাজধানী স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে। বেসরকারি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোও খুলতে শুরু করেছে। ফলে রাজধানীতে মানুষ ঘর থেকে বের হয়ে আসছে।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের নারায়ণগঞ্জের মদনপুর এলাকায় দেখা যায়, মহাসড়কে প্রচুর গাড়ি। দূরপালস্নার বাস ছাড়া সব ধরনের গাড়ি রয়েছে মহাসড়কে। হাইওয়ে পুলিশকে দায়িত্ব পালন করতে হিমশিম খেতে দেখা গেছে। ঢাকায় প্রচুর গাড়ি প্রবেশ করছে। এ ছাড়াও সিএনজির স্ট্যান্ডগুলোতে সিএনজি নিয়ে যাত্রীর জন্য অপেক্ষা করতে দেখা গেছে চালককে। একই চিত্র দেখা গেছে গাবতলী ও আব্দুলস্নাহপুর দিয়ে ঢাকার প্রবেশপথে।

সিএনজি অটোরিকশাচালক মঈন মিয়া বলেন, পেটের তাগিদে গাড়ি নিয়ে বের হয়েছি। তবে আগের চেয়ে এখন অনেক বেশি যাত্রী মিলছে। কয়দিন আগেও খুব ভয় ও আতঙ্ক ছিল মানুষের মাঝে, এখন আর সেটা নেই। পুরোদমে আমরা গাড়ি চালাচ্ছি। কোনো বাধা নেই।

ব্যক্তিগত গাড়িচালক আসাদ মিয়া বলেন, সকালে বনানী সিগন্যালে যানজট ছিল। প্রায় ৫ থেকে ৭ মিনিট অপেক্ষা করতে হয়েছে সিগন্যালে।

মদনপুরে হাইওয়ে পুলিশের দায়িত্বরত কর্মকর্তারা জানান, আগের মতোই ব্যস্ততা বেড়েছে সড়কে। মঙ্গলবার মহাসড়ক ছিল অনেকটা স্বাভাবিক।

গভীর রাতে মহাখালীতে পেট্রলপাম্পে আগুন
                                  

গভীর রাতে রাজধানীর মহাখালীতে একটি পেট্রলপাম্পে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১টা ৩৩ মিনিটে আগুনের সূত্রপাত ঘটে।

ফায়ার সার্ভিস নিয়ন্ত্রণকক্ষের কর্তব্যরত কর্মকর্তা কামরুল আহসান বলেন, আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ৫টি ইউনিট কাজ করেছে। রাত ১টা ৫০ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

তিনি জানান, আগুনের খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের পাঁচটি ইউনিট পাঠানো হয়। আগুনের কারণ সম্পর্কে প্রাথমিকভাবে কিছু জানা যায়নি। কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

এর আগে বুধবার সকালে রপুরের রূপনগর বস্তিতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এ আগুনে দুই শতাধিক ঘর পুড়ে গেছে। আহত হয়েছেন অন্তত তিনজন।

রূপনগর বস্তিতে ভয়াবহ আগুন
                                  

রাজধানীর মিরপুর রূপনগর বস্তিতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ১৬টি ইউনিট ঘটনাস্থলে কাজ করছে।

ফায়ার সার্ভিসের কন্ট্রোল রুম সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বুধবার সকাল পৌনে ১০টায় এ আগুন লাগে।

ফায়ার অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের ডিউটি অফিসার রাসেল শিকদার জানান, ৯ টা ৪৫ মিনিটে রূপনগরের ‘ত’ ব্লকের বস্তিতে আগুন লাগে। স্থানীয়দের খবরে ফায়ার সার্ভিসের ১৬টি ইউনিট ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। তারা আগুন নেভানোর চেষ্টা করছেন।

আগুন লাগার কারণ ও এর আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

সকালে রাজধানীতে হঠাৎ বৃষ্টি
                                  

রাজধানীতে হঠাৎ করেই ঝড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টি শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টা থেকে হঠাৎ ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি শুরু হয়।

বৃষ্টিতে অফিসগামী যাত্রীদের বেশ দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। একই সঙ্গে রাজধানীর বিভিন্ন রাস্তায় খোঁড়াখুঁড়ির কারণে পথচারীদেরও বেশ দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অস্থায়ী দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনার কথা আবহাওয়া অধিদফতর আগেই জানিয়েছিল।

আবহাওয়া অফিস আরও জানিয়েছে, পরবর্তী ৭২ ঘণ্টায় দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। খুলনা ও রাজশাহী বিভাগের দু’এক জায়গায় হালকা অথবা গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হতে পারে।

তিন বছরে ঢাকা শহরে বায়ুমান বেশি খারাপ হয়েছে: পরিবেশমন্ত্রী
                                  

শুষ্ক মৌসুমে অর্থাৎ সেপ্টেম্বর থেকে মার্চ পর্যন্ত বায়ুদূষণের মাত্রা ক্রমান্বয়ে বেড়ে যায়। রাজধানী ঢাকা শহরে শুষ্ক মৌসুমে শুধু সূক্ষ্ম বস্তুকণার পরিমাণ নির্ধারিত মাত্রার বাইরে থাকে। ২০০২ থেকে ২০১৯ পর্যন্ত বায়ুমানের ডাটা পর্যালোচনা করে দেখা যায়, ২০১৬ থেকে ২০১৯ এই তিন বছর বায়ুমান বেশি খারাপ হয়েছে। এ সময় বিভিন্ন বড়ো বড়ো অবকাঠামো নির্মাণ কর্মকাণ্ড বৃদ্ধি পাওয়ায় এমনটি ঘটেছে।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে গতকাল রবিবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে সরকার দলীয় সংসদ সদস্য মনজুর হোসেনের প্রশ্নের লিখিত জবাবে এ তথ্য জানান পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন।

মন্ত্রী জানান, পরিবেশ অধিদপ্তর কর্তৃক ঢাকাসহ দেশের অন্য বিভাগীয় ও শিল্পঘন শহরগুলোতে সার্বক্ষণিক বায়ুমান পরিবীক্ষণ কেন্দ্রের মাধ্যমে সারাদেশে বায়ুর গুণগত মান পরিমাপ করা হচ্ছে।

অন্যান্য দূষক যেমন : সালফার ডাইঅক্সাইড, নাইট্রোজেন অক্সাইড, কার্বন-মনোক্সাইড ইত্যাদি সারাবছর মানমাত্রার মধ্যে থাকে। বায়ুদূষণের উত্স হিসেবে ইটভাটা, যানবাহন, রাস্তা খোঁড়াখুঁড়িসহ বিভিন্ন ধরনের অবকাঠামো নির্মাণ কার্যক্রম, পৌরবর্জ্য ও বায়োমাস পোড়ানো এবং ট্রান্সবাউন্ডারি প্রভাবকে দায়ী করা হয়।

পরিবেশমন্ত্রী জানান, মাটি ব্যবহার করে পোড়ানো ইট উৎপাদন ও ব্যবহার শূন্যে নামিয়ে আনার লক্ষ্যে ২০১৫ সালের মধ্যে শতভাগ ব্লক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করে গেজেট প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। পরবর্তীতে সব বেসরকারি কাজে ইটের বিকল্প ব্লক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করার পরিকল্পনা রয়েছে। ফলে মাটি ব্যবহার করে পুড়ানো ইট উৎপাদনও ব্যবহার শূন্যে নেমে আসবে।

সরকার দলীয় সংসদ সদস্য শাহে আলমের প্রশ্নের লিখিত জবাবে মন্ত্রী শাহাব উদ্দিন জানান, পরিবেশের জন্য চরম ক্ষতিকর নিষিদ্ধঘোষিত পলিথিন বন্ধে সরকার বিভিন্ন প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা ও মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে নিষিদ্ধঘোষিত পলিথিন তৈরির কারখানায় অভিযান চালিয়ে পলিথিন জব্দ, জরিমানা ধার্য ও আদায় করা হচ্ছে।

বনানী টিঅ্যান্ডটি কলোনি বস্তির আগুন নিয়ন্ত্রণে
                                  

রাজধানীর বনানী টিঅ্যান্ডটি কলোনি বস্তির আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। ফায়ার সার্ভিসের ২২টি ইউনিট প্রায় ২ ঘণ্টার চেষ্টায় আগুণ নিয়ন্ত্রণে এনেছে।

তেজগাঁও ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স অধিদফতরের ডিউটি অফিসার মোক্তার হোসাইন জানান, টিঅ্যান্ডটি কলোনি বস্তির আগুন ভোর ৫টায় নিয়ন্ত্রণে এসেছে। আগুনের সূত্রপাতের কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ এখনো জানা যায়নি।
এর আগে শনিবার ভোর সাড়ে ৩টার দিকে রাজধানীর বনানী টিঅ্যান্ডটি কলোনি বস্তিতে আগুনের সূত্রপাত হয়।খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ২২টি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রায় ২ ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।
২ সিটির ভোট: বিজয়ী প্রার্থীর হার দেখিয়েছে ইসি!
                                  

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি নির্বাচনের ফলাফল জালিয়াতি করে একাধিক কাউন্সিলর প্রার্থীকে পরাজিত করার গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। একাধিক প্রার্থী অভিযোগ করেন, এই অনিয়মে নির্বাচন কমিশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা জড়িত। তারা বলেছেন, নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার কোনো স্বচ্ছতা ছিল না। অর্থের বিনিময়ে পরাজিত প্রার্থীকে জয়ী ঘোষণা করা হয়েছে আর বিজয়ী প্রার্থীকে পরাজিত দেখানো হয়েছে। ইতিমধ্যে ফল জালিয়াতির বিষয় প্রমাণিত হওয়ায় ঢাকা দক্ষিণের ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের ফলাফল স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন।

ফল জালিয়াতি করে ভোটে হারিয়ে দেওয়ার অভিযোগ আনেন ঢাকা দক্ষিণ সিটির ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগসমর্থিত প্রার্থী শেখ মোহাম্মদ আলমগীর। তিনি বলেন, একটি কেন্দ্রে তার প্রাপ্ত ৪৪৯টি ভোট যোগ না করে বরং সেই ভোট তৃতীয় অন্য এক প্রার্থীর হিসেবে যোগ করে তাকে পরাজিত দেখানো হয়েছে। প্রথম দিকে তার অভিযোগ আমলে না নিলেও দ্বিতীয় দফায় অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় ভোটের ফলাফল স্থগিত করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা আবদুল বাতেন। তিনি জানিয়েছেন, এ বিষয়ে পরবর্তীকালে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে কমিশন। গত ২ ফেব্রুয়ারি রিটার্নিং অফিসার আবদুল বাতেন স্বাক্ষরিত এক আদেশে বলা হয়েছে, স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) নির্বাচন বিধিমালা অনুসারে ঢাকা দক্ষিণ সিটির ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের ফলাফল ঘোষণা অনিবার্য কারণবশত স্থগিত করা হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পোলিং এজেন্টদের কাছ থেকে পাওয়া হিসাবে আওয়ামী লীগসমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী জিতেছেন ২৭ ভোটে। কিন্তু রাতে প্রকাশিত বেসরকারি ফলাফলে টিফিন ক্যারিয়ার মার্কার স্বতন্ত্র প্রার্থী জুবায়েদ আদেলকে জয়ী দেখানো হয় ২১০ ভোটে। শনিবার রাতেই তিনি রিটার্নিং অফিসে গিয়ে ধরনা দেন মোহাম্মদ আলমগীর। কিন্তু কেউ-ই তখন তার অভিযোগ কানে তোলেননি। পরে তিনি ইভিএমের কপি জোগাড় করে নিশ্চিত হলেন তিনিই বিজয়ী হয়েছেন।

আওয়ামী লীগ সমর্থিত (ঝুড়ি মার্কা) প্রার্থী শেখ মোহাম্মদ আলমগীর বলেন, সব যোগ-বিয়োগ করার পর, আমি জিতেছি। আমি রাতে সেগুনবাগিচায় গিয়ে জানতে পারি ফেল করেছি। কিন্তু ইভিএমের প্রিন্টেড কপির হিসেবে দক্ষিণ সিটির ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের আরমানিটোলা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়-২ পুরুষ কেন্দ্রে তিনি পান ৪৪৯ ভোট। কিন্তু ফলাফলে দেখানো হয়েছে তিনি পেয়েছেন ২০২ ভোট। স্বতন্ত্র প্রার্থী ইরোজ আহমেদের ঘুড়ি মার্কায় পড়েছে ৪৪৯ ভোট। আর ঘোষণাকৃত স্বতন্ত্র প্রার্থী জুবায়েদ আদেলের টিফিন ক্যারিয়ার মার্কায় পড়ে ২২৬ ভোট। তার দাবি, তার প্রাপ্ত ৪৪৯ ভোট ঘুড়ি মার্কার প্রার্থীকে দেখানোর ফলে তিনি নির্বাচনে পরাজিত হয়েছেন।

তিনি বলেন, গড়ে সব সেন্টার মিলিয়ে টিফিন ক্যারিয়ারে দেখাচ্ছে ২৪৪৫ ভোট আর আমাকে দেখাচ্ছে ২২৩৫ ভোট। ঐ কেন্দ্রের ফল ঠিকমতো যোগ না করায় ২০০ এর বেশি ভোটের ব্যবধানে হেরেছি। তখন আমি নির্বাচন কমিশনের কর্মকর্তাকে বললাম যে এটা আপনি কি করলেন, এই ৪৪৯ ভোট তো আমার, এটা তো আপনারা মিসিং করছেন। রবিবার রিটার্নিং অফিসে গিয়ে কাগজপত্র নিয়ে আবারও বিষয়টি জানান রিটার্নিং কর্মকর্তাকে। পরে সন্ধ্যায় গণবিজ্ঞপ্তি দিয়ে ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের ফলাফল স্থগিত করেন দক্ষিণের রিটার্নিং কর্মকর্তা। ইভিএম হওয়ার পরও কীভাবে এটি ঘটল তা খতিয়ে দেখতে কমিশনকে অনুরোধ করেছেন আলমগীর। একইভাবে দক্ষিণের ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের সঠিক ফলাফল ঘোষণা এবং ভোট পুনঃগননার জন্য রিটার্নিং অফিসারের কাছে আবেদন করেন ঠেলাগাড়ি প্রতীকের সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থী মো. বিল্লাল শাহ। তিনিও অভিযোগ করেন, সুষ্ঠুভাবে ভোট গণনা না করে মৌখিকভাবে ফলাফল ঘোষণা করা হয়। তিনি বলেন, নির্বাচনের ফল জালিয়াতি আর গরমিলে ভরপুর।

অর্থের বিনিময়ে ফলাফল পালটানোর অভিযোগ করেছেন ঢাকা উত্তর সিটির ৬ নম্বর ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ সমর্থিত মো. সালাউদ্দিন রবিন (টিফিন ক্যারিয়ার মার্কা)। প্রধান নির্বাচন কমিশনার বরাবর লিখিত অভিযোগে রবিন উল্লেখ করেন, ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার পর ভোট গণনার সময় আমার এজেন্টদের মৌখিকভাবে আমাকে বিজয়ী বলে কেন্দ্র থেকে জোরপূর্বক বের করে দেওয়া হয়। রিটার্নিং অফিসের বরাতে বিভিন্ন টেলিভিশন এবং অনলাইনে সালাউদ্দিন রবিনকে বিজয়ী করে সংবাদ পরিবেশন হয়। কিন্তু রাত ১২টা থেকে ১টার মধ্যে আমার নাম পরিবর্তন করে বিদ্রোহী প্রার্থী মো. তাজুল ইসলাম চৌধুরী বাপ্পিকে বিজয়ী ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা এবং ভয়ংকর জালিয়াতি। তিনি ইভিএমের অরজিনাল কপি সরবরাহ করে ফলাফল পুনঃগণনার মাধ্যমে তাকে বিজয়ী ঘোষণার অনুরোধ করেন।

সালাউদ্দিন রবিন জানান, দ্বিগুন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, আলুদ্বী পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ এবং পল্লবী মাজেদুল ইসলাম মডেল হাইস্কুল কেন্দ্রে তার এজেন্টের কাছে ফলাফল ঘোষণার লিখিত কপি সরবরাহ করা হয়নি। তিনি বলেন, এই তিন কেন্দ্রের ফলাফল পরিবর্তন করে আমাকে হারানো হয়েছে। ইসির সংশ্লিষ্ট নির্বাচন কর্মকর্তারা মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে এই কাজ করেছেন বলে অভিযোগ করেন সালাউদ্দিন রবিন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উত্তর রিটার্নিং অফিসার মো. আবুল কাশেম বলেন, মৌখিক ফলাফলকে চূড়ান্ত বলে গণ্য করার সুযোগ নেই। কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিজাইডিং অফিসার যে ফলাফল পাঠিয়েছেন তার ভিত্তিতেই ফল ঘোষণা করা হয়েছে। ফলে কোনো ত্রুটি থাকলে সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি কমিশন অথবা ট্রাইব্যুনালে যেতে পারেন। তবে ফলাফল ঘোষণার পর ইভিএম লক করা হয়েছে। এটি একমাত্র ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে পুনঃগণনা সম্ভব বলে মত দেন তিনি।

৯ মেয়র প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত : সদ্য শেষ হওয়া ঢাকার দুই সিটির জাতীয় পার্টি-জাপার প্রার্থীসহ ৯ জন মেয়র প্রার্থীই তাদের জামানত হারিয়েছেন। নির্বাচনে ৯টি রাজনৈতিক দলের মেয়র প্রার্থী ছিল ১৩ জন। নিয়ম অনুযায়ী, প্রদত্ত ভোটের ৮ ভাগের এক ভাগ ভোট না পেলে তার জামানত বাজেয়াপ্ত হয়। এ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রার্থী ছাড়া সবারই জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে। ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দুই প্রার্থী নৌকায় পেয়েছেন ৫৯ দশমিক ১০ শতাংশ ভোট। আর ধানের শীষের দুই প্রার্থী পেয়েছেন ৩৩ দশমিক ৯৪ শতাংশ ভোট।

ঢাকার বায়ুদূষণ নিয়ে হাইকোর্টের ক্ষোভ
                                  

ঢাকার বায়ুদূষণ রোধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ না নেওয়ায় হতাশা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন হাইকোর্ট। এ বিষয়ে জানাতে আগামী ১০ এপ্রিল পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে (ডিজি) তলব করেছেন আদালত।

বায়ুদূষণ নিয়ে দায়ের করা এক রিটের শুনানিতে বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ আজ বুধবার এ আদেশ দেন।

 

ঢাকার বায়ুদূষণের মাত্রা পরিমাপ করে এবং দূষণ রোধে কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে, তা আগামী ১০ এপ্রিলের মধ্যে প্রতিবেদন আকারে দাখিল করতে পরিবেশ অধিদপ্তরের ডিজিকে নির্দেশও দেন আদালত। আদালত বলেন, ‘বায়ুদূষণ রোধে নেওয়া পদক্ষেপ আমাদের হতাশ করেছে। আমরা ক্ষুব্ধ।’

রিটের শুনানিতে আদালত আরও বলেন, ‘মেট্রোরেল ও এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের কাজ যেসব এলাকায় চলছে, সেসব এলাকায় প্রচুর ধুলাবালি পরিবেশকে দূষিত করছে। আমাদের মেট্রোরেল প্রয়োজন। কিন্তু একই সঙ্গে বায়ুদূষণ রোধও জরুরি। আমাদের সন্তানদের রক্ষা করতে হলে এসব (বায়ুদূষণ) বন্ধ করতে হবে।’

ঢাকার বায়ুদূষণ রোধে পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশনা চেয়ে মানবাধিকার ও পরিবেশবাদী সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে গত ২৭ জানুয়ারি হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় রিটটি করা হয়।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

বিশ্বে সবচেয়ে বায়ুদূষণের কবলে থাকা শহরগুলোর মধ্যে ঢাকা শহরের অবস্থান ১৭তম। আর রাজধানী শহরগুলোর তালিকায় ঢাকার অবস্থান দ্বিতীয়। এই শহরের বাতাসে ক্ষুদ্র বস্তু কণিকার (পার্টিকুলেট ম্যাটার বা পিএম ২.৫) পরিমাণ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) বেঁধে দেওয়া মাত্রার চেয়ে প্রায় ১০ গুণ বেশি।

যুক্তরাষ্ট্রের সফটওয়্যার প্রতিষ্ঠান এয়ারভিজ্যুয়ালের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। ‘বিশ্ব বাতাসের মান প্রতিবেদন ২০১৮’ শীর্ষক প্রতিবেদনে থাকা শহরগুলোর তালিকাটি এয়ারভিজ্যুয়ালের ওয়েবসাইটে ৫ মার্চ প্রকাশ করা হয়। বিশ্বের ৭৩টি দেশের বায়ুর মানের ভিত্তিতে প্রতিবেদনটি তৈরি করা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে প্রতি ঘনমিটার আয়তনে বাতাসে ক্ষুদ্র বস্তু কণিকার পরিমাণ বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে।

ক্ষুদ্র বস্তু কণিকার আকার ২ দশমিক ৫ মাইক্রন বা মাইক্রোমিটার। মানুষের চুলের সঙ্গে তুলনা করলেই এই আকার সম্পর্কে সহজে ধারণা পাওয়া যায়। চুলের ব্যাস গড়ে ৬০ মাইক্রোমিটার হয়ে থাকে। অর্থাৎ একটি চুলকে চিরে ২৪ ভাগ করলে যে ব্যাস পাওয়া যাবে, ক্ষুদ্র কণিকার আকার তার সমান। অত্যন্ত ক্ষুদ্র হওয়ায় এসব কণিকা খুব সহজেই মানুষের শ্বাসতন্ত্রে ঢুকে পড়ে। সেখান থেকে পুরো শরীরে ছড়িয়ে স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদি স্বাস্থ্য জটিলতা তৈরি করে।

স্বাস্থ্যঝুঁকি এড়াতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বাতাসে ক্ষুদ্র কণিকার গড় মাত্রা প্রতি ঘনমিটারে ১০ মাইক্রোগ্রাম বেঁধে দিয়েছে। অথচ ঢাকার বাতাসে এই কণিকার মাত্রা ২০১৮ সালে ছিল প্রতি ঘনমিটারে ৯৭ দশমিক ১ মাইক্রোগ্রাম। ২০১৭ সালে এই মাত্রা ছিল প্রতি ঘনমিটারে ৭৯ দশমিক ৭ মাইক্রোগ্রাম। অর্থাৎ ওই বছরের তুলনায় গত বছর ঢাকার বাতাস আরও অস্বাস্থ্যকর হয়ে ওঠে।

মেট্রোরেলের কারণে বদলে যাচ্ছে ঢাকার চলার পথ
                                  

যেভাবে বাস চলছে
গত ১৫ জানুয়ারি থেকে রাজধানীতে ট্রাফিক বিভাগের নতুন নিয়মে বাস চলছে। মিরপুর রোড থেকে মানিক মিয়া অ্যাভিনিউ হয়ে আসা বাসগুলোকে ফার্মগেটের দিকে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। এই সড়কপথের বাসগুলো বিজয় সরণি থেকে তেজগাঁওয়ে দিকে ঘুরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এই সড়কে চলাচলকারী কোনো কোনো বাস সরাসরি সায়েন্স ল্যাবরেটরি হয়ে শাহবাগ দিয়ে মতিঝিল যাচ্ছে। কেবল ক্যান্টনমেন্ট রুটের বাস ফার্মগেট হয়ে মতিঝিলের দিকে যেতে পারছে। মেট্রোরেল প্রকল্পের কাজ এগোনোর সঙ্গে সঙ্গে আরও বাসের পথ বদলানো হবে।

পথ বদলে বিপত্তি
বাসের মতো গণপরিবহনের চলার পথ বদলে দেওয়ায় বিপত্তিতে পড়তে হয়েছে যাত্রী ও বাসচালকদের। দুর্ভোগ বেড়েছে ফার্মগেট, খেজুরবাগান, তেজগাঁও, বাংলামোটরসহ আশপাশের এলাকাবাসী ও কর্মজীবী মানুষের। এ নিয়ে অসন্তোষ ট্রাফিক বিভাগের মধ্যেও রয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ট্রাফিক বিভাগের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, ‘বাসযাত্রীসহ সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ আমাদের দেখেও না দেখার ভান করতে হচ্ছে। কিন্তু উপায় নেই।’

জাবালে নূর পরিবহনের চার কর্মীকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর
                                  

রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে দুই শিক্ষার্থীকে পিষে মারার ঘটনায় গ্রেপ্তার জাবালে নূর পরিবহনের পাঁচ কর্মীর মধ্যে চারজনকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

গতকাল সোমবার রাতে চার আসামিকে রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়। আরেক আসামিকে আজ মঙ্গলবার পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হবে।

পুলিশের ক্যান্টনমেন্ট জোনের জ্যেষ্ঠ সহকারী কমিশনার তাপস কুমার দাস আজ সকালে প্রথম আলোকে বলেন, পাঁচ আসামির সবাই পুলিশের হেফাজতে আসার পর পরবর্তী আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

গত রোববার দুপুরে কুর্মিটোলায় বিমানবন্দর সড়কে জাবালে নূর পরিবহনের তিনটি বাস রেষারেষি করতে গিয়ে একটি বাস রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা লোকজনের ওপর উঠে পড়ে। এতে দুই শিক্ষার্থী নিহত ও নয়জন আহত হয়। নিহত দুই শিক্ষার্থী হলো শহীদ রমিজউদ্দীন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আবদুল করিম ওরফে রাজীব (১৭) এবং একই কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী দিয়া খানম (১৬)।

প্রাণহানির ঘটনায় নিহত শিক্ষার্থী দিয়া খানমের বাবা জাহাঙ্গীর আলম মামলা করেছেন।

র‍্যাব সদর দপ্তর থেকে গতকাল সোমবার জাবালে নূর পরিবহনের ঘাতক বাসটির চালক মাসুম বিল্লাহ, একই কোম্পানির অপর দুই বাসের চালক যুবায়ের ও সোহাগকে গ্রেপ্তার করার কথা জানানো হয়। এ ছাড়া দুই বাসের চালকের সহকারী এনায়েত ও রিপনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ক্যান্টনমেন্ট থানা সূত্র জানায়, জাবালে নূর পরিবহনের ঘাতক বাসটির চালক মাসুম বিল্লাহ ছাড়া বাকি চার আসামিকে গত রাতে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। মূল আসামি মাসুম বিল্লাহকে আজ পুলিশের কাছে হস্তান্তর করার কথা


   Page 1 of 30
     রাজধানী
সিনিয়র সাংবাদিক রাশীদ উন নবী বাবু আর নেই
.............................................................................................
বোবা কান্নায় রাজধানী ঢাকা ছাড়ছে মানুষ
.............................................................................................
১৩ ঘণ্টা পর জীবিত উদ্ধার ডুবন্ত লঞ্চ থেকে
.............................................................................................
ঢাকা ছাড়ছেন মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্তরা
.............................................................................................
ঢাকায় লকডাউনে আগ্রহী নয় সরকার
.............................................................................................
ডিএনসিসির মেয়রের দায়িত্ব নিচ্ছেন আতিকুল আজ
.............................................................................................
স্বরূপে ফিরতে শুরু করছে চিরচেনা রাজধানী
.............................................................................................
গভীর রাতে মহাখালীতে পেট্রলপাম্পে আগুন
.............................................................................................
রূপনগর বস্তিতে ভয়াবহ আগুন
.............................................................................................
সকালে রাজধানীতে হঠাৎ বৃষ্টি
.............................................................................................
তিন বছরে ঢাকা শহরে বায়ুমান বেশি খারাপ হয়েছে: পরিবেশমন্ত্রী
.............................................................................................
বনানী টিঅ্যান্ডটি কলোনি বস্তির আগুন নিয়ন্ত্রণে
.............................................................................................
২ সিটির ভোট: বিজয়ী প্রার্থীর হার দেখিয়েছে ইসি!
.............................................................................................
ঢাকার বায়ুদূষণ নিয়ে হাইকোর্টের ক্ষোভ
.............................................................................................
মেট্রোরেলের কারণে বদলে যাচ্ছে ঢাকার চলার পথ
.............................................................................................
জাবালে নূর পরিবহনের চার কর্মীকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর
.............................................................................................
ঢাকা মহানগরীতে ২৩১টি পূজা অনুষ্ঠিত হবে
.............................................................................................
ছুটি কাটিয়ে ঢাকায় ফিরতে ভোগান্তি
.............................................................................................
মুক্তামনির অস্ত্রোপচার সম্পন্ন
.............................................................................................
বনশ্রীর ঘটনায় হত্যাসহ দুটি মামলা
.............................................................................................
উত্তরা-আগারগাঁও মেট্রোরেলের উড়ালপথের নির্মাণ কাজ শুরু
.............................................................................................
বাড্ডায় শিশুকে ধর্ষণ করে হত্যা, অভিযুক্ত সিপন গ্রেফতার
.............................................................................................
ঢাকা ছাড়ল প্রথম হজ ফ্লাইট
.............................................................................................
র‌্যাবের অভিযানে আশুলিয়ায় ৪ জঙ্গির আত্মসমর্পণ
.............................................................................................
বনানীতে আবার জন্মদিনের দাওয়াত দিয়ে তরুণীকে ধর্ষণ
.............................................................................................
উত্তরায় অগ্নিকাণ্ড, দুই লাশ উদ্ধার
.............................................................................................
রাজধানীর বাস টার্মিনালে ঘরমুখী মানুষের ভিড়
.............................................................................................
শুরু হলো ঈদযাত্রা, ঢাকা ছাড়ছে মানুষ
.............................................................................................
যাত্রীর হাতব্যাগ থেকে ৫ কেজি সোনা উদ্ধার
.............................................................................................
শাহজালালে ৪০টি স্বর্ণবার আটক
.............................................................................................
বুড়িগঙ্গায় ১০০ যাত্রী নিয়ে ট্রলারডুবি
.............................................................................................
ঈদ উপলক্ষে বাস-ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু
.............................................................................................
সাভার ও লক্ষ্মীপুরে নব্য জেএমবির ৩ সদস্য গ্রেফতার
.............................................................................................
ঈদে বেশি ভাড়া বন্ধে ভিজিল্যান্স টিম হবে: কাদের
.............................................................................................
সাভারে জঙ্গি আস্তানায় বিস্ফোরণ
.............................................................................................
ঈদ-যাত্রার জন্য বিআরটিসির ৯০০ বাস
.............................................................................................
জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে রেইনট্রির এমডিকে
.............................................................................................
ঢাকা-কলকাতা সরাসরি বাস চলাচল শুরু
.............................................................................................
রাজধানীতে শ্যামলী স্কয়ার সেন্টারে আগুন
.............................................................................................
মগবাজার ফ্লাইওভার: সোনারগাঁও ক্রসিং অংশের উদ্বোধন
.............................................................................................
ঝড়ে রাজধানীতে গাছ উপড়ে আহত ২
.............................................................................................
আপন জুয়েলার্সের সব মালিককে গোয়েন্দা দপ্তরে তলব
.............................................................................................
হোটেল রেইনট্রি থেকে ১০ বোতল মদ জব্দ
.............................................................................................
আপন জুয়েলার্সের ৫ শাখায় অভিযানে শুল্ক গোয়েন্দারা
.............................................................................................
ঢাকাকে বাসযোগ্য করে তুলবো : সাঈদ খোকন
.............................................................................................
আজ মাংস ব্যবসায়ীদের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা দাবি না মানলে রমজানে কর্মবিরতি
.............................................................................................
শ্যামপুরে ট্রাকের ধাক্কায় নিহত ২
.............................................................................................
কাঁচা আমের নেমেছে ঢল
.............................................................................................
রানা প্লাজা ট্রাজেডির চার বছর আজ
.............................................................................................
সকালের ভারী বর্ষণে দুর্ভোগে রাজধানীবাসী
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: মো: হাবিবুর রহমান সিরাজ
আইন উপদেষ্টা : অ্যাড. কাজী নজিব উল্লাহ্ হিরু
সম্পাদক ও প্রকাশক : অ্যাডভোকেট মো: রাসেদ উদ্দিন
সহকারি সম্পাদক : বিশ্বজিৎ পাল
যুগ্ন সম্পাদক : মো: কামরুল হাসান রিপন
নির্বাহী সম্পাদক: মো: সিরাজুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : সাগর আহমেদ শাহীন

সম্পাদক কর্তৃক বি এস প্রিন্টিং প্রেস ৫২ / ২ টয়েনবি সার্কুলার রোড, সূত্রাপুর ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ৯৯ মতিঝিল , করিম চেম্বার ৭ম তলা , রুম নং-৭০২ , ঢাকা থেকে প্রকাশিত ।
মোবাইল: ০১৭২৬-৮৯৬২৮৯, ০১৬৮৪-২৯৪০৮০ Web: www.dailybishowmanchitra.com
Email: news@dailybishowmanchitra.com, rashedcprs@yahoo.com
    2015 @ All Right Reserved By dailybishowmanchitra.com

Developed By: Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD