|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   রাজনীতি -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
১৪ দলের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র নির্বাচিত আমির হোসেন আমু

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমুকে ১৪ দলীয় জোটের সমন্বয়ক ও মুখপাত্রের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তিনি সদ্যপ্রয়াত আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের স্থলাভিষিক্ত হলেন।

বুধবার এক ভিডিও বার্তায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের গণমাধ্যমকে এই তথ্য জানিয়েছেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ১৪ দলের শরিক দলসমূহের নেতাদের সর্বসম্মতিক্রমে আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমির হোসেন আমুকে ১৪ দলের সমন্বয়ক ও মুখপাত্রের দায়িত্ব দিয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, আমির হোসেন আমু তার দীর্ঘ রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা, দক্ষতা ও প্রজ্ঞা দিয়ে ১৪ দলের সমন্বয়কের দায়িত্ব পালনে যথাযথ ভূমিকা পালন করবেন বলে নেত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

১৪ দলের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র নির্বাচিত আমির হোসেন আমু
                                  

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমুকে ১৪ দলীয় জোটের সমন্বয়ক ও মুখপাত্রের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তিনি সদ্যপ্রয়াত আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের স্থলাভিষিক্ত হলেন।

বুধবার এক ভিডিও বার্তায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের গণমাধ্যমকে এই তথ্য জানিয়েছেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ১৪ দলের শরিক দলসমূহের নেতাদের সর্বসম্মতিক্রমে আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমির হোসেন আমুকে ১৪ দলের সমন্বয়ক ও মুখপাত্রের দায়িত্ব দিয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, আমির হোসেন আমু তার দীর্ঘ রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা, দক্ষতা ও প্রজ্ঞা দিয়ে ১৪ দলের সমন্বয়কের দায়িত্ব পালনে যথাযথ ভূমিকা পালন করবেন বলে নেত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

২০ দলের নেতারা দেখা করতে চান খালেদা জিয়ার সঙ্গে
                                  

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে চান ২০ দলীয় জোটের নেতারা। তারা জোটনেত্রীর সঙ্গে সবশেষ রাজনৈতিক পরিস্থিতি, ভবিষ্যত কৌশল নির্ধারণসহ অন্যান্য বিষয়ে কথা বলতে চান।

রোববার রাতে এক ভার্চুয়াল বৈঠকে মিলিত হন বিএনপির নেতৃত্বাধীন জোটটির শীর্ষ নেতারা। এ সময় এই ইচ্ছা প্রকাশ করেন।
বিএনপি চেয়ারপারসন ও ২০ দলীয় জোটের নেত্রী খালেদা জিয়ার সঙ্গে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতা মাহমুদুর রহমান মান্নার সাক্ষাতের বিষয় তুলে ধরে জোটের একজন নেতা বৈঠকে বলেন, ঐক্যফ্রন্টের নেতা যদি নেত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে পারেন তাহলে ২০ দলীয় জোটের শরিক দলের নেতা হিসেবে আমরা তার সঙ্গে দেখা করতে পারব না কেন? এ সময় শরিক দলের আরেক নেতা প্রস্তাব করেন, ঢালাওভাবে সব নেতার সাক্ষাতের সুযোগ না হলেও অন্তত জোটের সিনিয়র কয়েকজন নেতা গিয়ে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে পারেন।
জবাবে জোটের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খান বলেন, এটা (খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাত) হতে পারে। এ বিষয়ে তিনি দলীয়ভাবে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত জানাবেন। জোটের সমন্বয়ক বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন।
বৈঠকে অংশ নেন জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল মিয়া গোলাম পরওয়ার, জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল হায়দার, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, জমিয়তে ওলামায়ে ইসলামের নির্বাহী সভাপতি আল্লামা নূর হোসেন কাসেমী, বাংলাদেশ জাতীয় দলের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সৈয়দ এহসানুল হুদা, বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মাওলানা আবদুর রকিব, এলডিপির একাংশের মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম, বাংলাদেশ পিপলস লীগের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট গরীবে নেওয়াজ, ন্যাপ ভাসানী চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আজহারুল ইসলাম, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির চেয়ারম্যান খন্দকার লুৎফর রহমান, ডেমোক্রেটিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি, বাংলাদেশ ইসলামিক পার্টির চেয়ারম্যান আবু তাহের চৌধুরী, খেলাফত মজলিশের মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদের, ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির চেয়ারম্যান কারী আবু তাহের ও বাংলাদেশ ন্যাপের একাংশের চেয়ারম্যান শাওন সাদেকী।
এছাড়া এলডিপির একাংশের সভাপতি ড. কর্নেল (অব.) অলি আহমদ অল্প সময়ের জন্য বৈঠকে অংশ নিলেও তিনি কোনো কথা বলেননি।
বৈঠক সম্পর্কে জোটশরিক বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান বলেন, দেশের সার্বিক বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এ বিষয়ে জোটের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খান ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত জানাবেন।
শরিক দলের আরেক নেতা জানান, বৈঠকে সাম্প্রতিক রাজনৈতিক বিষয়গুলো প্রাধান্য পেয়েছে। করোনাভাইরাস, চিকিৎসা ব্যবস্থার দুরবস্থা, কৃষকদের ঋণ প্রণোদনা দেয়া, শহর ছেড়ে গ্রামে ফেরা মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি, পাটকল বন্ধ ও শ্রমিকদের পাওনা বুঝিয়ে দেয়া, নতুন অর্থবছরের উচ্চাভিলাষী বাজেট প্রত্যাখ্যান করার বিষয়টিও উঠে এসেছে। এছাড়া সীমান্তে বিএসএফের বাংলাদেশি হত্যার ঘটনায় সরকার চুপ থাকার প্রতিবাদ জানানো হয়। সূত্র জানায়, বৈঠকে রাজনৈতিক দল নিবন্ধন নিয়ে নির্বাচন কমিশনের নতুন আইনকে কালো আইন আখ্যা দেন নেতারা। করোনা মহামারীর মধ্যে এ ধরনের আইন করার বিষয়টিকে দুরভিসন্ধিমূলক বলে মত দেন তারা।
কৃষকদের ৪ শতাংশ সুদে ঋণ দেয়ার জন্য সরকারি প্রণোদনার টাকা পেতে নানা ধরনের শর্ত দেয়া হচ্ছে। এ বিষয়ে জোটের নেতারা আলোচনা করেন। তারা বিনাশর্তে কৃষকদের ঋণ দেয়ার দাবি জানিয়েছেন।

চলে গেলেন বিএনপির সাবেক মন্ত্রী গিয়াস উদ্দিন
                                  

সাবেক মন্ত্রী ও শরীয়তপুর জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি এটিএম গিয়াস উদ্দিন ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি...রাজিউন)।

শুক্রবার রাত ১০টা ৪০ মিনিটে ঢাকার গ্রিন লাইফ হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শ্যামা ওবায়েদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, উনি (গিয়াস উদ্দিন) করোনা আক্রান্ত ছিলেন। কিন্তু গত এক সপ্তাহ আগে পরীক্ষায় করোনা নেগেটিভ আসে। এরপর
গতকাল রাতে গ্রিন লাইফ হাসপাতালে মারা যান।

শ্যামা ওবায়েদ আরও বলেন, শনিবার বাদ জোহর জানাজা শেষে মোহাম্মদপুরের একটি কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

বিএনপির সাংগঠনিক কার্যক্রম স্থগিত ১৫ জুলাই পর্যন্ত
                                  

মহামারী করোনাভাইরাসের প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি’র সাংগঠনিক কার্যক্রম/সাংগঠনিক গঠন ও পুনর্গঠন কার্যক্রম আজ ২৫ জুন বৃহস্পতিবার পর্যন্ত স্থগিত করেছিল। এই স্থগিতাদেশ আগামী ১৫ জুলাই পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা নির্দেশিত স্বাস্থ্য সুরক্ষাবিধি ও সামাজিক দুরত্ব অনুসরণ করে দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম/সাংগঠনিক গঠন ও পুনর্গঠন কার্যক্রম আগামী ১৬ জুলাই থেকে পর্যায়ক্রমে সীমিত আকারে শুরু করা হবে বলে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

মোহাম্মদ নাসিমের স্বাস্থ্যের অবনতি হয়েছে
                                  

সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের স্বাস্থ্যের অবনতি হয়েছে। চিকিৎসকরা বলছেন, বৃহস্পতিবার রাতে তার মাইল্ড স্ট্রোক হয়েছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত, এখন তার জরুরি অস্ত্রোপচার চলছে। তিনি করোনা আক্রান্ত হয়ে কল্যাণপুরে বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এর আগে, সোমবার দুপুর ১২টায় করোনার উপসর্গ নিয়ে বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালের কেবিনে ভর্তি হন মোহাম্মদ নাসিম। পরে করোনা ভাইরাস পরীক্ষার জন্য তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। সন্ধ্যায় রিপোর্ট পজেটিভ আসে। রাতে তাকে হাসপাতালের কেবিন থেকে আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়।

প্রায় এক সপ্তাহ আগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) মোহাম্মদ নাসিমের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছিল। সেই সময় রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছিলো।

 

মুক্তির শর্তের বিষয়ে পরামর্শ আইনজীবীদের সঙ্গে
                                  

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া শর্ত সাপেক্ষে মুক্তির দুই মাসের মাথায় দলের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ এবং ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করছেন। তিনি তার গুলশানের বাসভবন ফিরোজায় স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন করে কথা বলছেন নেতাদের সঙ্গে।

ফোনেও কথা বলছেন কারো কারো সঙ্গে। মূলত তিনি শুভেচ্ছা বিনিময় এবং করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে আলাপ আলোচনা করছেন। মহামারির এ পরিস্থিতিতে দলের নেতাকর্মীদের করণীয় সম্পর্কে দিকনির্দেশনা প্রদান করেছেন।

স্থায়ী কমিটির একাধিক সদস্যের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে, মুক্তির শর্ত এবং আইনগত বিষয়ে তিনি খুবই সচেতন। সেভাবেই তিনি তার অবস্থানে থাকবেন এবং কর্মকাণ্ড চালাবেন। এজন্য তিনি বিশেষজ্ঞ আইনজীবীদের সঙ্গেও কথা বলেছেন। দলের নেতৃত্বে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানই আছেন। তবে খালেদা জিয়া এখন মুক্ত, তাই দলে তার যে করণীয় রয়েছে তা তিনি করবেন।

গত ২৫ মার্চ সরকারের নির্বাহী আদেশে মুক্ত হওয়ার পর স্থায়ী কমিটির সদস্যরা পবিত্র ঈদুল ফিতরের রাতে বেগম জিয়ার সঙ্গে তার বাসভবনে বৈঠক করেন ও শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। তবে এর আগে গত ১১ মে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাত্ করেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তার পরদিন ১২ মে বেগম খালেদা জিয়া তার বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাসকে ডেকে কথা বলেন।

গত মঙ্গলবার রাতে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাত্ করেন। বুধবার রাতে সাক্ষাত্ করেন দলের অন্যতম ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টু। বেগম জিয়া করোনা আক্রান্ত গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর স্বাস্থ্যের খোঁজখবর নিতে ফোন করেন। খালেদা জিয়া তার বাসা থেকে শিমুল বিশ্বাসের মাধ্যমে জাফরুল্লাহ চৌধুরীর জন্য কিছু ফল ও একগুচ্ছ ফুল পাঠান।

দলের স্থায়ী কমিটির একাধিক সদস্য জানান, খালেদা জিয়ার মুক্তিতে দল অনেকটা চাঙ্গা। শীর্ষ নেতাদের মাধ্যমে দেশবাসীর প্রতি যে বার্তা তিনি দিচ্ছেন তাতে নেতারা সন্তুষ্ট।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘খালেদা জিয়া আহ্বান জানিয়েছেন, জনগণ যেন ঘরে থাকে এবং এই মহামারিকে প্রতিরোধ করবার জন্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার যে সমস্ত বিধান দিয়েছে তা যেন তারা মেনে চলে। বেগম জিয়া সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন যে, এত প্রতিকূল অবস্থার মধ্যেও বিএনপির নেতাকর্মীরা দুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়াতে চেষ্টা করেছেন।

তিনি বলেছেন, এখন সাহস না হারিয়ে দাঁড়াতে হবে।’ এদিকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু দলীয় প্রধানের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘তার শারীরিক অবস্থার কোনো উন্নতি হয়নি। তবে মানসিক অবস্থাটা তার অনেক ভালো হয়েছে।’

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘ঈদের সৌজন্য সাক্ষাত্ হিসেবেই গিয়েছিলাম বেগম জিয়াকে দেখতে। চেহারায় তাকে ফ্রেশ লেগেছে। তবে অসুস্থতা আগের মতোই আছে। তার বাম হাত বেঁকে গেছে। তুলতে পারেন না, ডান হাতেও ব্যথা। তবে তার মনোভাব আগের মতোই অটুট আছে।’

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বললাম, কেমন আছেন। তিনি জানালেন, ঈদুল ফিতরের দিনে জাউ ছাড়া কিছু খেতে পারেননি। আজ একটু সেমাই খেয়েছেন।

এদিকে একটি সূত্র জানায়, ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট কার্যকর দেখতে চান খালেদা জিয়া। ঐক্যফ্রন্ট গঠনের অন্যতম উদ্যোক্তা গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী গতকাল বলেন, ‘বেগম জিয়া জোট নিয়ে পজিটিভ। রাজনীতি না থাকলে কারো জন্যই লাভ হবে না। উনি হয়তো সেটা বুঝেছেন। আর সেটা করতে হলে সবাইকে নিয়েই করতে হবে।’

প্রয়োজন হলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হবে: ওবায়দুল কাদের
                                  

দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতিকে ‘স্বাভাবিক’ উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, পরিস্থিতি বিবেচনা করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধসহ সরকার নানা পদক্ষেপ নেবে।

শনিবার রাজধানীতে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সমসাময়িক বিষয়ে ব্রিফিংকালে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি। খবর ইউএনবির।

ওবায়দুল কাদের বলেন, করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবিলায় সরকার প্রয়োজনীয় সব প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে।

পরে করোনাভাইরাস বিষয়ক সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী কাদের।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাস থেকে সৃষ্ট প্রাণঘাতী ‘কোভিড-১৯’ রোগে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বব্যাপী মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৪৩৬ জনে।

ওয়ার্ল্ডওমিটার্সের তথ্যানুসারে, সারা বিশ্বে শনিবার পর্যন্ত এ রোগে বিশ্বব্যাপী ১ লাখ ৪৫ হাজার ৮১০ জন আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ৭২ হাজার ৫৩১ জন পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এছাড়া ৬৭ হাজার ৮৪৩ জন বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১৪৫টি দেশ ও অঞ্চলে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবকে ‘বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

এ রকম সংবেদনশীল বিষয় নিয়ে তারা যেন রাজনীতি না করে: কাদের
                                  

করোনাভাইরাস নিয়ে রাজনীতি না করতে বিএনপির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, বিএনপি সব কিছুতে ব্যর্থ হয়ে রাজনীতির ইস্যু খুঁজে বেড়াচ্ছে। করোনাভাইরাস নিয়েও তারা নিকৃষ্ট রাজনীতির আশ্রয় নিয়েছে। আমি তাদের অনুরোধ করব– এ ধরনের একটি মানবিক বিষয় নিয়ে, এ ধরনের একটি সংবেদনশীল বিষয় নিয়ে তারা যেন রাজনীতি করা থেকে বিরত থাকে।

বুধবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ শাখা এবং সহযোগী সংগঠনগুলোর সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। বাংলাদেশেও এই ভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। করোনা মোকাবেলায় সরকারের সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে। সরকার এটিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়েছে, যার প্রমাণ মুজিববর্ষের মতো এত কাঙ্ক্ষিত অনুষ্ঠান সংক্ষেপ করা। আমি তাদের (বিএনপি) অনুরোধ করব, এ ধরনের একটি মানবিক সংবেদনশীল বিষয় নিয়ে রাজনীতি থেকে তারা যেন বিরত থাকে। সব বিষয়েই রাজনীতি করা উচিত নয়।

রাজনৈতিক সংগঠন হিসেবে বিএনপি জাতীয় ইস্যুতে কর্মসম্পর্ক নষ্ট করেছে দাবি করে কাদের বলেন, ‘অন্য কোনো ব্যাপারে আমাদের মধ্যে আজ কোনো কর্মসম্পর্ক পর্যন্ত নেই। এমন পরিস্থিতি বিএনপি বাংলাদেশে ১৫ আগস্টের পর থেকে সৃষ্টি করেছে। ২১ আগস্টে সেই প্রাচীরটিকে তারা আরও উঁচু করে ফেলেছে।’

এ সময় আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শাজাহান খান, যুগ্ম সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, মির্জা আজম, দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কেশবপুর উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমা
                                  

যশোর-৬ (কেশবপুর) আসনের উপ-নির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী এসএম হাবীবুর রহমান মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে তিনি কেশবপুর উপজেলা নির্বাচনী কর্মকর্তা বজলুর রশীদের কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেন।

এ সময় হাবীবুর রহমানের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন তার স্ত্রী জান্নাতুন নাঈম, কেশবপুর পৌর শাখা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান, গোলাম মোস্তফা, মঙ্গলকোট ইউনিয়ন জাপার সাধারণ সম্পাদক নুর ইসলাম, সাতবাড়িয়া ইউনিয়নের জাতীয় পার্টির সভাপতি জিএম হাসান।

জাপা প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হতে হবে। জাতীয় পার্টি জনগণের ওপর আস্থা রাখে। দলের আদর্শ জনগণের মাঝে বিশেষ করে নতুন প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দেয়াই হবে তার প্রধান কাজ।

পাপিয়ার সঙ্গে সখ্য নিয়ে যা বললেন সাবিনা তুহিন
                                  

নরসিংদী জেলা যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক শামীমা নূর পাপিয়ার সঙ্গে যুব মহিলা লীগের ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য সাবিনা আক্তার তুহিনের সখ্য রয়েছে বলে আলোচনা চলছে।

পাপিয়ার নানা কাজে তুহিনের পৃষ্ঠপোষকতা রয়েছে এমন অভিযোগও করেছেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

গত ২২ ফেব্রুয়ারি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে চার সহযোগীসহ পাপিয়া আটকের পর একের পর এক বিষ্ময়কর তথ্য আসতে শুরু করে।

প্রকাশ পেতে শুরু করে তার বিলাশবহুল জীবন ও রাজধানীর হোটেল ওয়েস্টিনে স্যুট ভাড়া অশ্লীল সব কমর্কাণ্ডের ইতিহাস।

এমন পরিস্থিতিতে যে প্রশ্ন ওঠে, পাপিয়ার সব অনৈতিক কর্মকাণ্ডে সরকার দলীয় কোনো কোন নেতাকর্মীর পৃষ্ঠপোশকতা রয়েছে? কাদের আশকারায় এতো দূর এসে পৌঁছেছেন তিনি?

এসব প্রশ্নের মুখেই সাবেক সংসদ সদস্য সাবিনা আক্তার তুহিনের নাম উঠে আসে। অনেক নেতাকর্মী জানান, তুহিনের সঙ্গে পাপিয়ার ওঠা-বসা ছিল।

তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে এক গণমাধ্যমে তুহিন দাবি করেন, ‘পাপিয়ার সঙ্গে তার সাংগঠনিক সম্পর্কের বাইরে কিছু ছিল না। রাজনৈতিকভাবে হেয় করতে পাপিয়ার সঙ্গে আমাকে জড়ানো হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘আমি মহানগর উত্তরের নেত্রী। রাজনীতির কারণে আমার অনেকের সঙ্গে মিশতে হয়েছে। আমাদের কেন্দ্রীয় সম্মেলন আছে, সে কারণে দেশের সব জেলার নেত্রীদের সঙ্গেই আমার মিশতে হয়। এখানে পাপিয়াকে আলাদা করে ভাবার কিছু নেই।’

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল পাপিয়ার সঙ্গে তার ছবিগুলো প্রসঙ্গে তুহিন বলেন, ‘শুধু আমার সঙ্গে কেন, কার সঙ্গে তার ছবি নাই? এমপি-মন্ত্রী থেকে শুরু করে আমাদের পার্টির অনেক নেতার সঙ্গে পাপিয়ার ছবি আছে।’

তুহিন আরো দাবি করেন, ‘পাপিয়াকে নেত্রী আমি বানাইনি। ২০১৪ সালে সে যখন নরসিংদী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হন, তখন আমি তাকে চিনতামও না। আমার সঙ্গে তার পরিচয় ২০১৭ সালে। তাহলে পাপিয়ার উত্থানে কেমন করে আমার হাত থাকে?’

তিনি যোগ করেন, ‘আওয়ামী লীগে পাপিয়ার স্থান করে দেয়ার পেছনে আমার কোনোই ভূমিকা ছিল না। তিনি যখন নেত্রী হন, তখন আমি তাকে চিনতামই না। অর্থাৎ কমিটিতে আসার ব্যপারে আমার কোনো ভূমিকা থাকতে পারে না। আর জেলা কমিটি গঠনে মহানগরের কোনো হাত থাকে না।’

তবে ২০১৭ সালে পরিচয়ের পর পাপিয়ার সঙ্গে সখ্য গড়ে ওঠার স্বীকার করে তুহিন বলেন, ‘সে সময় আমি এমপি ছিলাম। দলীয় স্বার্থে তার সঙ্গে আমার দেখা হতো, কথা হতো। বিশেষকরে তার বাসা আমার বাসা থেকে কাছে, তাই প্রায়ই বাসায় আসত সে।’

তাকে গত এক বছর ধরে পাপিয়া তার সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করছে না বলে জানান তুহিন।

এর কারণ হিসেবে তুহিন বলেন, ‘বছর দেড়েক আগে আমার কাছে টাকা ধার চেয়েছিল সে। আমি দিইনি। এতে হয়তো অসন্তুষ্ট হয়ে আমার এখানে আসে না।’

তিনি বলেন, ‘এরপর নরসিংদী গিয়ে তাকে ফোন করি, তবু সে দেখা করেনি। আমাকে অনেকটাই এড়িয়ে চলেছে সে।’

পাপিয়া কেন তাকে এড়িয়ে চলেছে প্রশ্নে যুব মহিলা লীগের ঢাকা মহানগর উত্তরের এই সভাপতি বলেন, অনৈতিক কর্মকাণ্ডে জড়ানোর কারণেই হয়ত ভয়ে আমার কাছে আর ঘেষতে চায়নি সে।’

প্রসঙ্গত, গত ২২ ফেব্রুয়ারি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে পাপিয়াসহ চার জনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব ১-এর একটি দল। গ্রেফতারকৃত অন্যরা হলেন, পাপিয়ার স্বামী মফিজুর রহমান ওরফে সুমন চৌধুরী ওরফে মতি সুমন (৩৮), তাদের সহযোগী সাব্বির খন্দকার (২৯) ও শেখ তায়্যিবা (২২)।

গ্রেফতারের পর পাপিয়া ও তার স্বামী সুমন চৌধুরীর দেয়ার তথ্য অনুযায়ী হোটেল ওয়েস্টিনে পাপিয়ার নামে বুকিং করা বিলাসবহুল প্রেসিডেন্সিয়াল স্যুট এবং ফার্মগেট এলাকার দুটি বিলাসবহুল ফ্ল্যাটে অভিযান চালায় র‌্যাব।

এসব স্যুট ও ফ্ল্যাট থেকে ১টি বিদেশি পিস্তল, ২টি ম্যাগাজিন, ২০ রাউন্ড গুলি, ৫ বোতল বিদেশি মদ ও নগদ ৫৮ লাখ ৪১ হাজার টাকা, ৫টি পাসপোর্ট, ৩টি ব্যাংক চেকবই, কিছু বিদেশি মুদ্রা, বিভিন্ন ব্যাংকের ১০টি এটিএম কার্ড উদ্ধার করে র‌্যাব।

র‌্যাবের এক কর্মকর্তা বলেছেন, রাজনীতির আড়ালে মাদক ও নারীদের নিয়ে ‘বাণিজ্য’ করতেন পাপিয়া। রাজধানীর তারকা হোটেলগুলোয় বিশেষকরে ওয়েস্টিনে মাঝেমধ্যেই ‘ককটেল পার্টি’র আয়োজন করতেন। এসব পার্টিতে উপস্থিত হতেন সমাজের উচ্চস্তরের লোকজন। মদের পাশাপাশি পার্টিতে উপস্থিত থাকত উঠতি বয়সী সুন্দরী তরুণীরা।

খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি বৃহস্পতিবার পর্যন্ত মুলতবি
                                  

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় দণ্ডিত বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের শুনানি আগামী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত মুলতবি ঘোষণা করেছেন হাইকোর্ট।

একই সঙ্গে বুধবার বিকাল ৫টার মধ্যে তার স্বাস্থ্যগত সর্বশেষ তথ্য আদালতকে জানাতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এ সংক্রান্ত আবেদনের শুনানি নিয়ে রোববার দুপুরে হাইকোর্টের বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদেশে বলা হয়েছে, সম্প্রতি আপিল বিভাগ খালেদা জিয়ার সম্মতিক্রমে তাকে উন্নত চিকিৎসা (অ্যাডভান্স ট্রিটমেন্ট) দেয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়কে। এ বিষয়ে খালেদা জিয়া সম্মতি দিয়েছেন কিনা, দিলে চিকিৎসা শুরু হয়েছে কিনা, চিকিৎসা শুরু হলে খালেদা জিয়ার শরীরের সর্বশেষ অবস্থা বুধবার বিকালের মধ্যে হাইকোর্টকে জানাতে হবে।

প্রসঙ্গত, উন্নত চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়ার জামিন চেয়ে গত মঙ্গলবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আবেদনটি জমা দেয়া হয়। বুধবার খালেদা জিয়ার আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন আবেদনটি আদালতে উপস্থাপন করেন।

তখন বেঞ্চের জ্যেষ্ঠ বিচারক ওবায়দুল হাসান বলেছিলেন, এর আগে তো আমরা এই আবেদনটি খারিজ করেছিলাম। পরে আপিল বিভাগও সেটি বহাল রেখেছেন। জবাবে খন্দকার মাহবুব বলেন, আমরা তো আবারও আসতে পারি। জামিন চাইতে বারবার আসতে তো বাধা নেই। বিচারক তখন বলেন, ঠিক আছে, আমরা বিষয়টি রোববার শুনব।

শুনানিতে খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, অসুস্থতা ও বয়স বিবেচনায় ‘মানবিক কারণে খালেদা জিয়ার জামিন চেয়ে আবেদনে বলা হয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে তার উন্নত চিকিৎসা হচ্ছে না। জামিন পেলে তিনি চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতে চান।

আবেদনকারীর (খালেদা জিয়ার) শারীরিক অবস্থার দিন দিন অবনতি হচ্ছে। তিনি এখন গুরুতর অসুস্থ। অন্যের সাহায্য ছাড়া চলাফেরা করতে পারেন না, খেতে পারছেন না। এমনকি ওষুধও নিতে পারছেন না। তাই দ্রুত তাকে যুক্তরাজ্যের মতো উন্নত দেশে নিয়ে আধুনিক, উন্নত চিকিৎসা বা থেরাপি দেয়া প্রয়োজন। তার এই অসুস্থতার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে আধুনিক উন্নত থেরাপি বা চিকিৎসার স্বার্থে নতুন করে জামিন আবেদনটি করা হয়েছে।

দুর্নীতির দুই মামলায় মোট ১৭ বছরের দণ্ড মাথায় নিয়ে কারাবন্দি সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া গত এপ্রিল থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। দল ও পরিবারের সদস্যরা তাকে অন্য হাসপাতালে নিতে চাইলেও তাতে অনুমতি মেলেনি।

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় জামিনের জন্য এর আগেও হাইকোর্টে আবেদন করেন খালেদা জিয়া। কিন্তু অপরাধের গুরুত্ব, সংশ্লিষ্ট আইনের সর্বোচ্চ সাজা এবং বিচারিক আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়াসহ অন্য আসামিদের করা আপিল শুনানির জন্য প্রস্তুত- এ তিন বিবেচনায় হাইকোর্ট বেঞ্চ ৩১ জুলাই সেই আবেদন খারিজ করে দেন।

খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা এরপর আপিল বিভাগে গিয়েও ফল পাননি। ১২ ডিসেম্বর আপিল বিভাগ কিছু পর্যবেক্ষণ দিয়ে জামিন আবেদনটি খারিজ করে দেন।

বিএনপি চেয়ারপারসনের সম্মতি থাকলে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের মেডিকেল বোর্ডের পরামর্শ অনুযায়ী তাকে দ্রুত ‘অ্যাডভানসড ট্রিটমেন্ট’ দেয়ার পদক্ষেপ নিতে বলা হয় আপিল বিভাগের ওই রায়ে। সেই রায় ১৯ জানুয়ারি প্রকাশিত হওয়ার পর হাইকোর্টে নতুন করে জামিন আবেদন করার উদ্যোগ নেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা।

বিএসএমএমইউতে খালেদা জিয়ার স্বজনরা
                                  

কারাবন্দি বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে গেছেন তার স্বজনরা।

স্বজনদের মধ্যে রয়েছেন- খালেদা জিয়ার বোন সেলিমা ইসলাম, আরাফাত রহমান কোকোর শাশুড়ি ফাতেমা রেজা, ভাগ্নি শাহিনা জামান খান, ভাতিজা অভিক ইস্কান্দার, ভাবি কানিজ ফাতেমা।

বিএনপির চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শামসুদ্দিন দিদার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, বিকাল সোয়া তিনটার দিকে পরিবারের সদস্যরা বিএসএমএমইউর কেবিন ব্লকে প্রবেশ করেছেন। তারা এক ঘণ্টা সেখানে অবস্থান করবেন।

দুর্নীতির দুই মামলায় দণ্ডিত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাবন্দি। শারীরিক অসুস্থতার কারণে ২০১৯ সালের ১ এপ্রিল থেকে কারা হেফাজতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি চিকিৎসাধীন।
খালেদা জিয়ার মুক্তির পথে বাধা এখন ২ মামলা
                                  

কারাবন্দী সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মোট ৩৭টি মামলা রয়েছে। এর মধ্যে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় জামিন নেয়া বাকি রয়েছে। এ ছাড়া অন্য সব মামলায় তিনি জামিনে আছেন। সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজ হয়ে যায়। এরপর আইনি পথে জামিনের চেষ্টার পাশাপাশি গুরুতর অসুস্থ খালেদা জিয়ার জীবন রক্ষার জন্য উন্নত চিকিৎসা নেয়ার সুযোগ দিতে ফৌজদারি কার্যবিধির ৪০১(১) ধারায় সাজা স্থগিত করে মুক্তি দেয়ার দাবি জানিয়েছেন তার আইনজীবীরা।

খালেদা জিয়ার প্রধান আইনজীবী ও সুপ্রিম কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি খন্দকার মাহবুব হোসেন এ বিষয়ে বলেন, সব নাগরিকের এমনকি দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদেরও সংবিধান অনুযায়ী সুচিকিৎসা পাওয়ার অধিকার রয়েছে। তিনবারের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া একজন বয়স্ক মহিলা। বর্তমানে তিনি কারাগারে গুরুতর অসুস্থ। তার দণ্ড স্থগিত করে দেশে বা বিদেশে তার ইচ্ছা মতো উন্নত চিকিৎসা নেয়ার অধিকার রয়েছে। আমরা আশা করি সরকার এ ব্যাপারে ত্বরিত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। অন্যথায় একটি ভয়াবহ বিপর্যয় ঘটতে পারে। সরকারকে এ জন্য জাতির কাছে জবাবদিহি করতে হবে।

খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, আমাদের মনে রাখতে হবে কোনো সরকারই চিরস্থায়ী নয়। তাই আমরা আশা করব সরকার বেগম খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার সুযোগ দেয়ার জন্য সংবিধান ও আইনের বিধান মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়া একজন বয়স্ক মহিলা এবং অত্যন্ত অসুস্থ। সে কারণে সরকারের উচিত হবে ফৌজদারি কার্যবিধির ৪০১(১) ধারায় সাজা স্থগিত করে তার জীবন রক্ষার জন্য মুক্তি দিয়ে তাকে উন্নত চিকিৎসা নেয়ার সুযোগ দেয়া। তিনি বলেন, ৪০১(১) ধারায় সেই সুযোগ রয়েছে। সরকার ইচ্ছা করলে যেকোনো দণ্ডিতের সাজা স্থগিত করে তাকে মুক্তি দিতে পারে। আর এটা সরকারের একক দায়িত্ব, এখানে কারো কোনো আবেদন করতে হয় না।

খালেদা জিয়ার আরেক আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে যেসব মামলা রয়েছে তার মধ্যে আর দু’টি মামলায় জামিন পেলে তার কারামুক্তিতে বাধা থাকবে না। তিনি বলেন, খালেদা জিয়া তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী। একজন বয়স্ক মহিলা। আইনের বিধান আছে, তার বয়স ও অসুস্থতা বিবেচনায় তিনি জামিন পাওয়ার হকদার বা অধিকারী। এ কারণে তিনি বাকি দু’টি মামলায়ও জামিন পেতে পারেন।

এ বিষয়ে বিএনপির আইন সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে বর্তমানে ৩৭টি মামলা রয়েছে। এর মধ্যে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় তার জামিন নিতে হবে। তিনি বলেন, ফৌজদারি কার্যবিধির ৪০১(১) ধারায় সরকার যেকোনো সময় খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে পারেন। কেননা তাকে রাজনৈতিক বিবেচনায় আটক রাখা হয়েছে। তিনি বলেন, আইনাঙ্গনের অতীতের সব রেকর্ড ভঙ্গ করে ইচ্ছাকৃতভাবে আইন ও সংবিধানের তোয়াক্কা না করে তার কারাবাস দীর্ঘায়িত করা হচ্ছে। তিনি বারবার ন্যায়বিচার থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। সে জন্য সরকারেই উচিত হবে ৪০১(১) বিধানকে অনুসরণ করে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেয়া। তিনি বলেন, খালেদা জিয়া দেশের সংসদীয় গণতন্ত্র পুনঃপ্রবর্তন করেন। নারী শিক্ষার অগ্রগতির পাইওনিয়ার এবং স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে তিনি আপসহীন নেত্রী। তিনি সাবেক সেনাপ্রধান ও সাবেক রাষ্ট্রপতির স্ত্রী। দেশের সর্ববৃহৎ দলের চেয়ারপারসন। এসব দিক বিবেচনা করে বেগম খালেদা জিয়াকে সরকার মুক্তি দেবে বলে আমরা আশা করি।

খালেদা জিয়ার বেশির ভাগ মামলার আইনজীবী প্যানেলের সদস্য অ্যাডভোকেট আখতারুজ্জামান বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য আইনি প্রক্রিয়ার সাথে সাথে সরকারের সদিচ্ছাও থাকতে হবে। তা না হলে শুধুমাত্র আইনি পথে এ মুহূর্তে তার মুক্তি সম্ভব নয়। বর্তমানে তার মুক্তির জন্য জিয়া অরফানেজ ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় তাকে জামিন নিতে হবে। সরকার বা অ্যাটর্নি জেনারেলের পক্ষ থেকে বাধা সৃষ্টি না করা হলে এই দুই মামলায়ও জামিন পাওয়া সম্ভব।

আইনজীবীরা জানান, ২০১৮ সালের ২ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছর কারাদণ্ড দেয়া হয়। এরপর থেকে তিনি কারাগারে। নি¤œ আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে দায়ের করা আপিলে সাজা ১০ বছর করা হয়, যা আপিল বিভাগে শুনানির অপেক্ষায় আছে। অপর দিকে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় নি¤œ আদালত খালেদা জিয়াকে সাত বছরের কারাদণ্ড দেন। হাইকোর্টে এই সাজার বিরুদ্ধে আপিল ও জামিন আবেদন করা হয়। হাইকোর্ট জামিন আবেদন খারিজ করে দেন। এরপর আপিল বিভাগে জামিন আবেদন করা হলে আপিল বিভাগ তা খারিজ করেন।
বর্তমানে বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কেরানীগঞ্জে কেন্দ্রীয় কারাগারে নবনির্মিত ২ নম্বর ভবনে স্থাপিত অস্থায়ী আদালতে নাইকো, গ্যাটকো ও বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতির মামলার অভিযোগ গঠনের বিষয়ে শুনানির পর্যায়ে রয়েছে। তার বিরুদ্ধে ড্যান্ডি ডাইং মামলাটিও স্থগিত রয়েছে। অন্য দিকে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে যানবাহনে আগুন দিয়ে মানুষ হত্যা, সহিংসতা, নাশকতা, রাষ্ট্রদ্রোহ, মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কটূক্তি, জন্মদিন পালন এবং জাতীয় পতাকা অবমাননার অভিযোগে আরও ৩২টি মামলা রয়েছে।

এ মামলাগুলো ২০১৪ সালের পর বিভিন্ন সময়ে হয়েছে। মূলত রাষ্ট্রদ্রোহ, হত্যা, ইতিহাস বিকৃতি, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তি, ভুয়া জন্মদিন পালনের অভিযোগে এসব মামলা হয়। পুলিশ, সরকারি দলের নেতাকর্মী ও আইনজীবীরা ওইসব মামলা করেছেন। তার মধ্যে বেশির ভাগ মামলা হয়েছে ঢাকায়। কুমিল্লায় তিনটি এবং পঞ্চগড় ও নড়াইলে একটি করে মামলা দায়ের করা হয়।
ঢাকার মামলাগুলোর মধ্যে হত্যা ও নাশকতার মামলা ১৩টি। ২০১৪ ও ২০১৫ সালে বিএনপিসহ ২০ দলের ডাকা হরতাল-অবরোধের সময় বাসে আগুন, ভাঙচুর, ককটেল বিস্ফোরণ, মানুষ হত্যাসহ বিভিন্ন সহিংসতার ঘটনায় ১০টি মামলায় চার্জশিট দেয় পুলিশ। যার মধ্যে যাত্রাবাড়ী থানায় দু’টি ও দারুস সালাম থানায় আটটি মামলা। এ ছাড়া ঢাকার অপর মামলাগুলোর মধ্যে ভুয়া জন্মদিন পালন, ধর্ম ও মুক্তিযুদ্ধ, মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে বিভিন্ন মন্তব্যের জন্য মানহানির মামলা এবং ২০১৫ সালে গুলশানে সাবেক নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খানের মিছিলে পেট্রলবোমা হামলার মামলা উল্লেখযোগ্য।

 

যুবদলের ১১৪ সদ‌স্যের আংশিক কমিটি ঘোষণা
                                  

মেয়াদ শেষের প্রায় এক মাস পর যুবদলের ১১৪ সদস্য বিশিষ্ট আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।

এতে বলা হয় বিএন‌পির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তা‌রেক রহমা‌নের নি‌র্দে‌শে মহাস‌চিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ ক‌মি‌টির অনু‌মোদন দেন।

এর আগে ২০১৭ সালের ১৭ জানুয়ারি সাইফুল আলম নিরবকে সভাপতি ও সুলতান সালাহউদ্দিন টুকুকে সাধারণ সম্পাদক করে যুবদলের পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট আংশিক কেন্দ্রীয় নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছিল।

ওই কমিটিতে মোর্ত্তাজুল করিম বাদরু সিনিয়র সহ সভাপতি, নুরুল ইসলাম নয়ন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং মামুন হাসানকে সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়।

এ ক‌মি‌টি‌কে এক মাসের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করার নির্দেশ দেয়া হ‌য়ে‌ছি‌লে। কিন্তু তিন বছ‌রে মেয়াদেও তারা তা কর‌তে পা‌রে নি।

যুবদলের ঘোষিত আংশিক কমিটিতে আগের পাঁচজন ছাড়া সহসভাপতি হিসেবে আছেন আব্দুল খালেক হাওলাদার, জাকারিয়া মঞ্জুর, আলী আকবর চুন্নু, ইউসুফ বিন জলিল কালু, মোনায়েম মুন্না, গোলাম রাব্বানী, তরিকুল ইসলাম বনি, আব্দুল বাতেন শামীম, মো. রবিউল আউয়াল লাভলু, আবু সেলিম চৌধুরী, ইকবাল রশিদ অপু, শহীদ উল্লাহ তালুকদার, মাহফুজুর রহমান ফরহাদ, এস এম জাহাঙ্গীর হোসেন, রফিকুল আলম মজনু, রুহুল আমিন আকিল, জাকির হোসেন সিদ্দিকী, কাজী আজিজুল হাকিম আরজু, জাকির হোসেন নান্নু, এড. বেলাল হোসেন ভুঁইয়া লাভলু, মজিবুর রহমান(ঢাকা বিভাগ), মোসারফ হাসেন দিপ্তী (চট্টগ্রাম বিভাগ), মোসাব্বির হোসেন সঞ্জু (রাজশাহী বিভাগ), মাহবুব হাসান পিয়ারু (খুলনা বিভাগ), আক্তারুজ্জামান শামীম (বরিশাল বিভাগ), আনসার উদ্দিন (সিলেট বিভাগ), মহেবুল্লাহ আবু নুর (রংপুর বিভাগ), আশিকুর রহমান ওয়াসিম (কুমিল্লা বিভাগ) , খন্দকার মুসুদুল হক মাসুদ (ময়মনসিংহ বিভাগ), মাহবুবুল হাসান ভুঁইয়া পিংকু (ফরিদপুর বিভাগ), যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাসুদ আহমেদ মিলন, নুরুল ইসলাম খান মাসুদ, আলী আশরাফ প্রমুখ।

অফলাইনে প্রচার শেষ, অনলাইনে সরব প্রার্থীরা
                                  

ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক প্রচারণা গতকাল বৃহস্পতিবার শেষ হয়েছে। তবে অনলাইন মাধ্যমে প্রচারণা থেমে নেই। ছবি, পোস্টার, ভিডিও, গ্রাফিকসসহ নানা উপায়ে তাঁরা ভোটারদের আকৃষ্ট করার চেষ্টা করছেন। প্রচারণায় ফেসবুক, ওয়েবসাইট, ইউটিউব, টুইটারসহ নানা মাধ্যম ব্যবহৃত হচ্ছে।

ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনে মেয়র পদে এবার ১৩ জন এবং কাউন্সিলর পদে (সংরক্ষিতসহ) ৭৯৬ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তবে মেয়র পদপ্রার্থীদেরই অনলাইনে প্রচার-প্রচারণা সবচেয়ে বেশি। তা ছাড়া অনেক কাউন্সিলর পদপ্রার্থী ও তাঁদের সমর্থকেরাও অনলাইনে সরব উপস্থিতির জানান দিচ্ছেন।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী শেখ ফজলে নূর তাপসের নিজস্ব একটি ফেসবুক পেজ থেকে নির্বাচনী প্রচার চালানো হচ্ছে। পেজটিতে দেখা গেছে, ভিডিও বার্তার মাধ্যমে তাঁর সংক্ষিপ্ত জীবনী প্রকাশ করা হয়েছে। পাশাপাশি নির্বাচনী গণসংযোগ ও ঢাকা নিয়ে তাঁর পরিকল্পনারও বিস্তারিত বর্ণনা দেওয়া হয়েছে। তাঁর নিজস্ব ওয়েবসাইটে নির্বাচনী গান, ভিডিও, দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নিয়ে পরিকল্পনা, প্রতিশ্রুতিসহ নানা বিষয় স্থান পেয়েছে। আছে পারিবারিক ছবিও।

দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে তাপসের মূল প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ইশরাক হোসেনও তাঁর ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজ থেকে নির্বাচনী প্রচার চালাচ্ছেন। তাঁর প্রচারে বিভিন্ন সময়ের গণসংযোগের ভিডিও প্রকাশ করা হয়েছে।

উত্তরের মেয়র প্রার্থীদের মধ্যে আওয়ামী লীগের আতিকুল ইসলামের প্রচারে ফেসবুকের পাশাপাশি তাঁর ব্যক্তিগত ওয়েবসাইটও ব্যবহার করা হচ্ছে। আতিকের প্রচারে গণসংযোগের পাশাপাশি গত ৯ মাস মেয়র পদে থাকা অবস্থায় তাঁর ইতিবাচক কার্যক্রমও স্থান পাচ্ছে। এ ছাড়া তাঁর নির্বাচনী ইশতেহারও তুলে ধরা হচ্ছে প্রচারে।

আতিকুল ইসলামের মূল প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী তাবিথ আউয়ালও সক্রিয় অনলাইনে। ফেসবুক, ইউটিউব ও ওয়েবসাইটের মাধ্যমে তাঁর পক্ষে নির্বাচনী প্রচার চালানো হচ্ছে। তাঁর নামে তৈরি ওয়েবসাইট ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিএনপির এই প্রার্থীর নির্বাচনী ইশতেহার প্রকাশ করা হয়েছে। ইশতেহারটি তৈরির ক্ষেত্রে অনলাইনে ভোটারদের মতামত ও পরামর্শও নেওয়া হয়েছে।

মেয়র প্রার্থীদের পাশাপাশি কাউন্সিলর প্রার্থীরাও সনাতন পদ্ধতিতে প্রচারের পাশাপাশি অনলাইনকে প্রচারের অন্যতম মাধ্যম হিসেবে বেছে নিয়েছেন। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ–সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী ডেইজি সারওয়ারকে ফেসবুকে সরব দেখা গেছে। তাঁর নামে তৈরি একটি ফেসবুক পেজে ভিডিও বার্তা ও গানের মাধ্যমে ভোট প্রার্থনা, ওয়ার্ড নিয়ে তাঁর পরিকল্পনাসহ নানা বিষয় প্রকাশ করা হচ্ছে। হাজার হাজার মানুষ এসব প্রচার দেখছে।

অনলাইনে প্রচারের এই ধরন সম্পর্কে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) প্রেসিডেন্ট সৈয়দ আলমাস কবীর বলেন, যুগের সঙ্গে সঙ্গে নির্বাচনী প্রচারের ধরনেও পরিবর্তন এসেছে। এখন ঢাকা শহরের প্রায় সবাই ইন্টারনেট ব্যবহার করেন। তাই অনলাইনে নির্বাচনী প্রচারও অনেক বেশি কার্যকর। সে কারণে এর ব্যবহারও বাড়ছে।

আতিকের প্রচারণা অফিসে হঠাৎ রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক
                                  

ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনে আসন্ন নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগের সব প্রার্থী ও নেতা-কর্মীদের ভোটারদের ঘরে ঘরে গিয়ে ভোট চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র ও ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) ভোটার রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক।

এ সময় সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশনের (সিআরআই) ট্রাস্টি রাদওয়ান মুজিব বলেন, নির্বাচনের আগে প্রত্যেক ভোটারের কাছে পৌঁছে ভোট চাইতে হবে। সৎ, যোগ্য, দক্ষ ও পরীক্ষিত মানুষদের ভোট দেয়ার জন্য অনুরোধ করতে হবে। অন্য প্রার্থীদের থেকে সততা, দক্ষতা ও যোগ্যতায় আমাদের প্রার্থীরা যে এগিয়ে রয়েছে এই কথা সবাইকে জানাতে হবে।

ডিএনসিসি মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলামের বনানী নির্বাচনী প্রচারণা অফিসে বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিকের উপস্থিতিতে দারুণভাবে উজ্জীবিত হয় সেখানে থাকা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ এবং অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

আসন্ন ১ ফেব্রুয়ারি ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনকে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী শেখ ফজলে নূর তাপস (ডিএসসিসি) ও আতিকুল ইসলাম (ডিএনসিসি)।

সোমবার ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ৫১, ৫২, ৫৩, ৫৪ নম্বর ওয়ার্ডের বাউনিয়া, নলভোগ, কালিয়ারটেক, কামারপাড়া এলাকায় নির্বাচনী প্রচার ও গণসংযোগ করেন আতিকুল ইসলাম।


   Page 1 of 27
     রাজনীতি
১৪ দলের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র নির্বাচিত আমির হোসেন আমু
.............................................................................................
২০ দলের নেতারা দেখা করতে চান খালেদা জিয়ার সঙ্গে
.............................................................................................
চলে গেলেন বিএনপির সাবেক মন্ত্রী গিয়াস উদ্দিন
.............................................................................................
বিএনপির সাংগঠনিক কার্যক্রম স্থগিত ১৫ জুলাই পর্যন্ত
.............................................................................................
মোহাম্মদ নাসিমের স্বাস্থ্যের অবনতি হয়েছে
.............................................................................................
মুক্তির শর্তের বিষয়ে পরামর্শ আইনজীবীদের সঙ্গে
.............................................................................................
প্রয়োজন হলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হবে: ওবায়দুল কাদের
.............................................................................................
এ রকম সংবেদনশীল বিষয় নিয়ে তারা যেন রাজনীতি না করে: কাদের
.............................................................................................
কেশবপুর উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমা
.............................................................................................
পাপিয়ার সঙ্গে সখ্য নিয়ে যা বললেন সাবিনা তুহিন
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি বৃহস্পতিবার পর্যন্ত মুলতবি
.............................................................................................
বিএসএমএমইউতে খালেদা জিয়ার স্বজনরা
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার মুক্তির পথে বাধা এখন ২ মামলা
.............................................................................................
যুবদলের ১১৪ সদ‌স্যের আংশিক কমিটি ঘোষণা
.............................................................................................
অফলাইনে প্রচার শেষ, অনলাইনে সরব প্রার্থীরা
.............................................................................................
আতিকের প্রচারণা অফিসে হঠাৎ রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক
.............................................................................................
ঢাকার দুই সিটি নির্বাচন: পোলিং এজেন্ট নিয়োগ বিএনপির বড় চ্যালেঞ্জ
.............................................................................................
গণভবনে আ. লীগের যৌথ সভায় ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী নিয়ে আলোচনা
.............................................................................................
জনগণ ভোট দিতে পারলে নির্বাচনে বিএনপি জিতবে: মওদুদ
.............................................................................................
আজ ছাত্রলীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী
.............................................................................................
একাদশ সংসদ নির্বাচনের প্রথম বর্ষপূর্তি আজ
.............................................................................................
ঢাকার দুই সিটিতে আওয়মী লীগ ও বিএনপি’র মেয়র প্রার্থী মনোনয়ন চূড়ান্ত
.............................................................................................
শরীয়তপুরের আংগারিয়ায় বিজয় দিবস উপলক্ষে আবুল বাশার ফকির ৪৩ ডেক খিচুরী খাওয়ালেন !
.............................................................................................
আ’লীগের কমিটিতে নতুন পদ পেলেন যারা
.............................................................................................
চট্টগ্রাম-৮ আসনে উপনির্বাচনে মোর্শেদ খান স্বতন্ত্র প্রার্থী হলেন
.............................................................................................
ঢাকায় পুলিশের সঙ্গে বিএনপির পাল্টাপাল্টি ধাওয়া
.............................................................................................
বি​এনপির নেতারা শক্ত কথা বলছেন, ভেতরে কী
.............................................................................................
প্রধান মন্ত্রী’র সাথে নব নির্বাচিত আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতৃবৃন্দের ফুলেল শুভেচ্ছা বিনিময়
.............................................................................................
জাতীয় শ্রমিক লীগের নবনির্বাচিত নেতৃবৃন্দকে গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন নেতৃবৃন্দের ফুলেল শুভেচ্ছা
.............................................................................................
দুর্নীতির টাকায় বিলাসিতা মেনে নেওয়া হবে না : প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
এমপি হাজী সেলিমের হাতে ওয়ার্ড কাউন্সিলর লাঞ্ছিত
.............................................................................................
১৪ দলের গোল টেবিল বৈঠক
.............................................................................................
কাওসার-মারুফ-কাজী আনিসসহ ২০ জনের অ্যাকাউন্ট জব্দ
.............................................................................................
পাঁচ বছরের কারাদণ্ড কারাগারে হারুন
.............................................................................................
গোটা দেশকে টর্চার সেলে পরিণত করেছে আওয়ামী লীগ: রিজভী
.............................................................................................
বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠকে স্কাইপে অংশ নেন তারেক
.............................................................................................
মনোযোগ ভিন্নখাতে নিতেই নুরকে ভিপি বানানো হয়েছে: ছাত্রদল
.............................................................................................
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য হলেন সুলতান মনসুর
.............................................................................................
বিশ্বের সবচেয়ে কম বয়সী ধনী এই তরুণী!
.............................................................................................
নির্বাচনের প্রতি আস্থা নেই জনগণের : ফখরুল
.............................................................................................
একুশ আমাদের শিখিয়েছে মাথা নত না করা: প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
ডাকসু নির্বাচন নিয়ে ইতিবাচক ছাত্রদল
.............................................................................................
উপজেলা নির্বাচন: প্রথম ধাপ : বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী ১৯, দুটি উপজেলায় সব পদেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়
.............................................................................................
আ.লীগ গণতান্ত্রিক শক্তি নয়: ফখরুল
.............................................................................................
সংরক্ষিত নারী আসনেও চমক, ৪১ জনের নাম ঘোষণা
.............................................................................................
খালেদার মুক্তি আইনি বিষয়, এখানে রাজনীতি নেই : ওবায়দুল কাদের
.............................................................................................
শপথ নেবেন মির্জা ফখরুল!
.............................................................................................
চট্টগ্রামে বাস-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ৪
.............................................................................................
বেশুমার চাঁদাবাজি ১৫০ খাতে দৌরাত্ম্য সর্বত্র, শীর্ষে পরিবহন সেক্টর, দৈনিক সাপ্তাহিক মাসিক হারে আদায়, একশ্রেণির পুলিশ লোভী নেতা ও জনপ্রতিনিধির পৃষ্ঠপোষকতায় চাঁদাবাজরা বেপরোয়া
.............................................................................................
ভাইস চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন দেবে না আওয়ামী লীগ
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: মো: হাবিবুর রহমান সিরাজ
আইন উপদেষ্টা : অ্যাড. কাজী নজিব উল্লাহ্ হিরু
সম্পাদক ও প্রকাশক : অ্যাডভোকেট মো: রাসেদ উদ্দিন
সহকারি সম্পাদক : বিশ্বজিৎ পাল
যুগ্ন সম্পাদক : মো: কামরুল হাসান রিপন
নির্বাহী সম্পাদক: মো: সিরাজুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : সাগর আহমেদ শাহীন

সম্পাদক কর্তৃক বি এস প্রিন্টিং প্রেস ৫২ / ২ টয়েনবি সার্কুলার রোড, সূত্রাপুর ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ৯৯ মতিঝিল , করিম চেম্বার ৭ম তলা , রুম নং-৭০২ , ঢাকা থেকে প্রকাশিত ।
মোবাইল: ০১৭২৬-৮৯৬২৮৯, ০১৬৮৪-২৯৪০৮০ Web: www.dailybishowmanchitra.com
Email: news@dailybishowmanchitra.com, rashedcprs@yahoo.com
    2015 @ All Right Reserved By dailybishowmanchitra.com

Developed By: Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD